কমলগঞ্জে একটি ব্রিজের জন্য পৌরসভা ও ইউনিয়ন বাসীর জীবনযাত্রা ব্যাহত।।

কৃষ্ণা শর্ম্মা-কমলগঞ্জ(উপজেলা)প্রতিনিধি:- মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ পৌরসভাধীন ও সদর ইউনিয়নের সাথে যোগাযোগের জন্য।কমলগঞ্জের ধলাই নদীতে সেতুর অভাবে ২০ থেকে ২৫ টি গ্রামের হাজারো মানুষের যাতায়াতের একমাত্র ভরসা হচ্ছে বাঁশের সাঁকো। এ বাঁশের তৈরি সাঁকোর উপর দিয়েই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে স্কুল-কলেজ ও মাদ্রাসার ছাত্র সহ বৃদ্ধ-বৃদ্ধা গর্ভবতী মহিলা অসুস্থ রোগী। ও শিক্ষার্থীসহ সকল শ্রেণী পেশার মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সাঁকো পারাপার হন সাঁকোটি।
কমলগঞ্জ পৌরসভা ও সদর ইউনিয়ন ইউনিয়নের কম হলেও ২০ হাজার মানুষের পারাপারের একমাত্র ভরসা।এ বাঁশের তৈরি সাঁকোটি। পারাপার হতে গিয়ে প্রায়ই ঘটছে দুর্ঘটনা। পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ড করিমপুর গোপালনগর খেয়াঘাট হয়ে সদর ইউনিয়নের সাথে এই সড়কের যোগাযোগ। মধ্য জায়গায় সবচেয়ে বড় বাধা হচ্ছে ধলাই নদী। রামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নিকটে এই বাঁশের সাঁকোটি অবস্থান। যার ফলে ইউনিয়ন হতে পৌরসভায়, এবং পৌরসভা হতে ইউনিয়নে যেতে হলে এ সাঁকো ব্যবহার সারা পৌঁছা সম্ভব নয়। এছাড়াও মৌলভীবাজার সদর শহরে ইউনিয়নের লোকজন পৌঁছাতে হলে ৬ থেকে ৯ কিলো রাস্তা ঘুরে যেতে হচ্ছে।সড়ই বাড়ি, রামপুর, রামপাশা, সাইয়া খালি, চৈতন্য গঞ্জ, নারায়ণপুর, বনগাঁও, বাদে উবাহাটা গ্রামগুলো ছাড়া আরো ১০ থেকে ২০ টি গ্রামের লোকজন এ সাঁকোটি ব্যবহার করেন।
স্থানীয়রা জানান,দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের কাছে এই খেয়াঘাটে একটি সেতু নির্মাণের দাবি জানালেও দাবিটি বার বারই উপেক্ষিত। স্থানীয় বাসিন্দারা আরও জানান গত সংসদ নির্বাচনে এই অঞ্চলের বারবার নির্বাচিত সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা ড. উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ এমপি এলাকাবাসীকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন আবার নৌকা মার্কা জয়যুক্ত করা হলে উক্ত স্থানে একটি ব্রিজ নির্মাণ করা হবে এলাকাবাসীর যাতায়াতের সুবিধার্থে। কিন্তু এবারও যেন তা উপেক্ষিতই হচ্ছে বলে মনে করছেন এলাকাবাসী। স্থানীয়রা বাসিন্দাদের সাথে আলাপ করলে তারা আরো জানান, বাজারের সদাই দোকানির মাল কৃষি যন্ত্রপাতি পারাপারে ভোগান্তি হয় ।
ফসলের বুঝা নিয়ে অতিকষ্টে সাঁকোটি পার হন সত্তর ঊর্ধ্ব বয়সের অসহায় কৃষক আবদুল মোনাফ তিনি বলেন, গত ৪০ বছরে সাঁকোটি পারাপার হতে গিয়ে কয়েক শ লোক আহত হয়ে পঙ্গুত্ব বরণ করছেন। স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর যুবলীগ নেতা দেওয়ান আব্দুর রহিম মুহিন আলাপকালে এ প্রতিনিধিকে বলেন এখানে একটি ব্রিজ নির্মাণের জন্য এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে স্থানীয় প্রশাসন ও জেলা প্রশাসক মহোদয় কে জানানো হয়েছে এতে কোনো কাজ হচ্ছে না।
স্থানীয় চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান বলেন,এ স্থানে একটি ব্রিজ নির্মাণের দাবি এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের এখানে একটি সেতু বা ব্রিজ নির্মাণ করা হলে কমলগঞ্জ পৌরসভার সাথে সদর ইউনিয়নের যোগাযোগের একটি সেতু বন্ধন তৈরি হবে।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :256 বার!

JS security