কালনী ভিউ কর্তৃপক্ষের ক্ষমা প্রার্থনা, আব্দুল মান্নানের নামের সাথে মুক্তিযোদ্ধা শব্দ ব্যবহার করতে নিষেধাজ্ঞা

স্টাফ রিপোর্টার : দিরাই উপজেলার জগদল ইউপির রায়বাঙ্গালী গ্রামের আব্দুল মান্নান’র নামের সাথে মুক্তিযোদ্ধা কিংবা কমান্ডার শব্দ ব্যবহার করে সকল কার্যক্রম পরিচালনায় নিষেধাজ্ঞা, দিরাই কলেজ রোডস্থ কার্যালয় হতে মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল মান্নান লেখা সাইনবোর্ড ২৪ ঘন্টার মধ্যে অপসারণ, ফেইসবুক সহ নাম সর্বস্ব ওয়েব পোর্টালে এ সংক্রান্ত বিভিন্ন লেখা মুছে পেলতে প্রশাসনের সিদ্ধান্তে অবসান হয়েছে ভূয়া মুক্তিযোদ্ধা নিয়ে আলোচনা- সমালোচনার। সোমবার দিরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে দিরাই উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আতাউর রহমান ও অভিযুক্ত শামছুল ইসলাম সরদার খেজুরসহ অন্যান্য অভিযুক্তদের উপস্থিতিতে এক সালিশ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের দায়িত্বপ্রাপ্ত কমান্ডার ও ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিদুল ইসলাম’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় গৃহীত এসব সিদ্ধান্তসমূহে ক্ষোভ প্রশমিত হয়েছে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাদের। এসময় উপস্থিত ছিলেন দিরাই থানা অফিসার ইনচার্জ মোস্তফা কামাল, ওসি (তদন্ত) দেলোয়ার হোসেন, সাবেক কমান্ডার আব্দুল করিম, পৌর কমান্ডার সিরাজুল ইসলাম, সাবেক ডেপুটি কমান্ডার কানাই লাল রায়, সাংবাদিক আল-হেলাল, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড দিরাই শাখার সাধারণ সম্পাদক রাহাত মিয়া রাহাত। উল্লেখ্য জগদল ইউনিয়নের রায়বাঙ্গালী গ্রামের যুক্তরাজ্য প্রবাসী নামধারী যুবলীগ নেতা জুবের আলম খোরশেদ তার পিতা আব্দুল মান্নানকে মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার দাবী করে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে আসলে এই নিয়ে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড প্রতিবাদ জানালে জুবের আলমের আর্শীবাদপুষ্ঠ উপজেলা বিএনপির তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক একে কুদরত পাশা, সাবেক ছাত্রদল সভাপতি ও বিএনপি নেতা শামছুল ইসলাম সরদার খেজুর, ভাটিপাড়া ইউনিয়ন যুবদলের সভাপতি সৈদুর রহমান তালুকদার সহ কতিপয় বির্তকিত ব্যক্তিগণ দ্বারা পরিচালিত কালনী ভিউ নামক ওয়েব পোর্টালে মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আতাউর রহমান সহ স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে অশালীনভাবে বিষোদাগার করে। এরই জের ধরে কমান্ডার আতাউর রহমান বাদী হয়ে জুবের আলমসহ কালনী ভিউ কর্তৃপক্ষকে আসামী করে থানায় অভিযোগ দায়েরর প্রেক্ষিতে দিরাই থানা অফিসার ইনচার্জ মোস্তফা কামাল ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিদুল আলমের মধ্যস্থতায় আলোচনার ভিত্তিতে এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিদুল ইসলাম বলেন, যেহেতু রায়বাঙ্গালী গ্রামের আব্দুল মান্নান’র নাম মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকায় নেই, সেহেতু উনার নামের আগে মুক্তিযোদ্ধা না লিখার জন্য এবং এই নামে সকল কার্যক্রম বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে এবং সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আতাউর রহমানসহ মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে ফেইসবুক সহ ওয়েব পোর্টালের সকল অশালীন বক্তব্য মুছে ফেলার জন্য বলা হয়েছে। সেই সাথে কালনী ভিউ কর্তৃপক্ষকে তাদের পোর্টালের বৈধতার পক্ষে কাগজ-পত্র উপস্থাপনের জন্য মৌখিক নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :1831 বার!

JS security