কোভিট ১৯/করোনা,আম জনতার ভাবনা

লিখক আবদুল মুকিত :-

লকডাউন হোম কোয়ারেন্টাইন, না মানলে হবে ফাইন,

বন্ধ রয়েছে দোকান পাট, জনশুন্য বাজার হাট।
কষ্টে মোরা নিম্নবিত্ত, দূর্যোগ আসলেই কাঁপে চিত্ত
টিভি অনলাইনে মাইকে চলছে সতর্কতার প্রচার,
ঢাল নাই তলোয়ার নাই মোরা নির্বিকার,
ঘোষনায় হবে কি সমাধান ঘাতক করোনার ।

> আমি মফস্বলের পৌর শহরে বাস করা অতি সাধারন নাগরিকের ভাবনা থেকে বলছি, মোরা লকডাউন বা হোম কোয়ারেন্টাইন অনেকেই বুজিনা, পেটের দায়ে সারাদিন নিজ নিজ কাজে বের হতে হয়,অদৃশ্য ভাইরাস থেকে নিজে বাচতে এবং অন্যকে বাঁচাতে অবশ্যই সচেতন থাকা জরুরী,তবে দিনমজুর রাস্তার ধারের ছোট ছোট দোকানী যারা একদিন ঘরে বসে থাকলে চুলা জ্বলবেনা তাদের জন্য চিড়া মুড়ির ব্যবস্হা করার মিনতি করছি। ভোটের সময় আমরা আপনাদের পিছনে স্লোগান দেই অমুক ভাই তমুক ভাই সুখে দুখে যাকে পাই,আজ দুঃখের দিনে আমরা আপনাদেরকে পাশে চাই,
> যেদেশে আশি ভাগ মানুষ গ্রামে বাস করে সে দেশে ভিলেজ লকডাউন কি সম্ভব?
> আমাদের সরকার করোনা ঠেকাতে ইউরোপ আমেরিকার মতো পদক্ষেপ নিচ্ছেন, আমরা করোনার চেয়ে শক্তি শালী মিনিস্টাররা তাও বলছেন,
> যে দেশে শহরে গ্রামে ভিক্ষুকরা আজো দলবেদে বাড়ী বাড়ী ঘুরে চাউল /টাকা ভিক্ষা করছে হয়তো বা কোনো বিদেশ ফেরত পরিবারে ভিক্ষা করে এসে হাত না ধোয়ে আবার আমার বাড়ি থেকেও ভিক্ষা নিচ্ছে আমার বারান্দায় বসে আমার বউয়ের কাছ থেকে পান চেয়ে খাচ্ছে তাইলে লকডাউন লিক হয়ে গেলো না!
> আমরা চড়া দামে মাস্ক কিনে ব্যবহার করছি কিন্তু কেমনে ব্যবহার করে তাও জানিনা, পাশাপাশি আবর্জনার উপর দিয়ে হাটছি রাস্তায় ধুলা বালি ময়লা আবর্জনার স্তুপ নালা নর্দমায় আবর্জনা পঁচে দূর্গন্ধ আসছে এভাবেই আমাদের নিত্যদিনের পথ চলা।
> যারা ভোটের সময় নিজের মার্কায় ভোট ঠানতে লাখ লাখ টাকা খরছ করেন, তিনারা নিজ অর্থে হলেও এমন সময়ে সুইপার সংখ্যা বাড়িয়ে আবর্জনা পরিস্কার, নালা নর্দমায় জীবানুনাশক ঔষদ স্প্রে করা সহ নিম্ন বিত্ত পরিবারে সাবান সোডা বিতরন করতে পারতেন।
> যেহেতু প্রবাসে যারা থাকেন এবং প্রবাস থেকে যারা বাড়ী আসেন তাদের অধিকাংশই গ্রামের মানুষ তাই গ্রামের দিকে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য স্কুল বন্ধ ঘোষনার পর শিক্ষা মন্ত্রনালয় থেকে শিক্ষক শিক্ষিকাদের নিজ নিজ স্কুল এলাকায় সচেতনতা মুলক প্রচারের দিক নির্দেশনা দিতে পারতেন,
> পরিশেষে বলবো আমরা গরীব অভাজন
সকল বিপদে আল্লাহকে ডাকি সর্বক্ষন,
হে মাবুদ হে পরোয়ারদেগার রাখো মারো যাই করো
সকলই ইচ্ছা তোমার —-।।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :200 বার!

JS security