গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় শনাক্ত ৩১৭১-মৃত্যু ৪৫ জন

গ্লোবাল সিলেট ডেস্কঃ- বিশ্বে যখন মৃত্যু মিছিল তখন করোনায় বাংলাদেশেও দিনকে দিন বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা। দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৪৫ জনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে মহামারি করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯)। ফলে ভাইরাসটিতে মোট ৯৭৫ জন মারা গেলেন। একই সময়ে করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন আরো ৩ হাজার ১৭১ জন। ফলে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭১ হাজার ৬৭৫ জন। ৫৫টি ল্যাবে এই পরীক্ষাগুলো করা হয়।

মঙ্গলবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনাভাইরাস বিষয়ক নিয়মিত হেলথ বুলেটিনে এ তথ্য জানান অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (মহাপরিচালকের দায়িত্বপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা। তিনি সবাইকে স্বাস্থ্য পরামর্শ মেনে ঘরে থাকার আহ্বান জানান। পাশাপাশি তিনি পুষ্টিকর খাবার গ্রহণেরও পরামর্শ দেন। একই সাথে যারা করোনার এই মহামারিতে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন তাদের ধন্যবাদ দেন নাসিমা।

ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, করোনা ভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৪ হাজার ৬৬৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এ নিয়ে দেশে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হলো চার লাখ ২৫ হাজার ৫৯৫টি। নতুন নমুনা পরীক্ষায় করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে আরও তিন হাজার ১৭১ জনের শরীরে। ফলে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৭১ হাজার ৬৭৫ জনে। এ ছাড়া ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৭৭৭ জন। ফলে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেন মোট ১৫ হাজার ৩৩৬ জন।

এ সময় নাসিমা বলেন, করোনায় (কোভিড-১৯) চিকিৎসায় অক্সিজেন অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু বর্তমানে পরীলক্ষিত হচ্ছে যে, অনেকে অক্সিজেন সিলিন্ডার কিনে রাখছে। কোভিড-১৯ চিকিৎসায় ব্যবহারের জন্য। যা ঠিক নয়। কারণ অক্সিজেন থেরাপী একটি কারিগরি বিষয়। দক্ষ চিকিৎসক ব্যাতীত অন্য কেউ এটি প্রয়োগ করলে তা রোগীর জন্য ক্ষতির কারণ হতে পারে। তাছাড়া করোনা চিকিৎসায় অনেক ক্ষেত্রেই অক্সিজেন দিতে হয় যা বাসায় দেয়া সম্ভব না। তাই জণসাধারণের কাছে অনুরোধ আপনারা বাসায় অক্সিজেন সিলিন্ডার মজুদ করবেন না। আপনার মজুদের কারণে বাজারে অক্সিজেন সিলিন্ডারের কৃত্তিম সংকট দেখা দিতে পারে। যার ফলে হাসপাতালের মুমূর্ষ রোগীরা যথাযথ সময় অক্সিজেন সিলিন্ডার পাবেন না। এমনটা আমাদের করোরই কাম্য নয়।

তিনি আরো বলেন, অক্সিজেন থেরাপী প্রতি মিনিটে কতো লিটার বা কতো এমএল বা কতো মিলি লিটার অক্সিজেন যাবে তা শুধুমাত্র চিকিৎসকই নির্ধারণ করে দিতে পারেন। এবং একজন টেকনোলোজিস্টই পারেন বলতে কীভাবে সিলিন্ডারটির নিয়ন্ত্রণ করা হবে। কাজেই সবার প্রতি আমার পরামর্শ থাকবে আমরা যেনো নিজের বিপদ নিজে টেনে না আনি। অক্সিজেন সিলিন্ডার বাসার দক্ষ চিকিৎসক ছাড়া ব্যবহার না করি।

এর আগে সোমবারের বুলেটিনে জানানো হয়, দেশে চব্বিশ ঘণ্টায় আরো ২ হাজার ৭৩৫ জনের শরীরে করোনার সংক্রমণ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৬৮ হাজার ৫০৪ জন। এ সময়ের মধ্যে মারা গেছেন আরো ৪২ জন। সব মিলিয়ে মৃতের সংখ্যা ৯৩০।

প্রসঙ্গত, চীনের উহান থেকে বিস্তার শুরু করে গত চার মাসে বিশ্বের ২১৫টিরও বেশি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯)। চীনে করোনার প্রভাব কমলেও বিশ্বের অন্য কয়েকটি দেশে মহামারি রূপ নিয়েছে। এরই মধ্যে বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা ৭২ লাখ ১০ হাজার ২০০ জন। মারা গেছেন চার লাখ ৮ হাজারেরও বেশি মানুষ। তবে ৩৫ লাখ ৫০ হাজারেরও বেশি রোগী ইতিমধ্যে সুস্থ হয়েছেন।

করোনাভাইরাস মূলত শ্বাসতন্ত্রে সংক্রমণ ঘটায়। এর লক্ষণ শুরু হয় জ্বর দিয়ে, সঙ্গে থাকতে পারে সর্দি, শুকনো কাশি, মাথাব্যথা, গলাব্যথা ও শরীর ব্যথা। সপ্তাহখানেকের মধ্যে দেখা দিতে পারে শ্বাসকষ্ট। উপসর্গগুলো হয় অনেকটা নিউমোনিয়ার মত। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ভালো হলে এ রোগ কিছুদিন পর এমনিতেই সেরে যেতে পারে। তবে ডায়াবেটিস, কিডনি, হৃদযন্ত্র বা ফুসফুসের পুরোনো রোগীদের ক্ষেত্রে ডেকে আনতে পারে মৃত্যু।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :117 বার!

JS security