চট্টগ্রামে র‌্যাবের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবলীগ নেতা নিহত

গ্লোবাল ডেস্কঃ-  চট্টগ্রামে র‌্যাবের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবলীগ নেতা নিহত। চট্টগ্রাম নগরীর আগ্রাবাদে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তালিকাভুক্ত শীর্ষসন্ত্রাসী খোরশেদ আহম্মেদ (৩৬) নিহত হয়েছেন। এছাড়া ঘটনাস্থল থেকে তিনটি অস্ত্র ও ১২ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

গত রবিবার (১৩ অক্টোবর) রাত সাড়ে ১০টায় এ ‘বন্দুকযুদ্ধ’ হয় বলে র‌্যাব জানায়। নিহত খোরশেদ পাঠানটুলী ওয়ার্ড যুবলীগের সহ-সভাপতি ২৮ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের নেতা ও হত্যাসহ ৮টি মামলার আসামি বলে জানা গেছে।

র‌্যাব-৭ এর উপ-অধিনায়ক স্কোয়াড্রন লিডার সাফায়াত জামিল ফাহিম জানান, রাত ৯টার দিকে আগ্রাবাদ কমার্স কলেজ এলাকা থেকে একটি বিদেশি পিস্তলসহ আটক করা হয় খোরশেদকে। আটকের পর সে তার আস্তানায় আরো অস্ত্র থাকার তথ্য দেয়। পরে তাকে নিয়ে আগ্রাবাদ ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার সংলগ্ন এলাকায় তার আস্তানায় অভিযানে গেলে খোরশেদের লোকজন র‌্যাবের উপর লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। আত্মরক্ষার্থে গুলি চালায় র‌্যাব সদস্যরাও। গোলাগুলি শেষে খুরশীদের লাশ উদ্ধার করা হয়। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ‍দুটি পিস্তল, ১২ রাউন্ড গুলি ও দেশে তৈরি একটি এলজি উদ্ধার করা হয়।

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের ৩০ জুন দিবাগত রাত একটার দিকে আরেক পেশাদার সন্ত্রাসী গোলাম সরওয়ার প্রকাশ হামকা মিলনসহ ১০-১৫ সহযোগী নিয়ে মনির হোসেন মান্নান নামে এক ব্যক্তির হাত বিচ্ছিন্ন করে কুপিয়ে হত্যা করে খোরশেদ। মান্নান হত্যায় জড়িত থাকার অভিযোগে খোরশেদ ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে ২০১৫ সালের ২০ সেপ্টেম্বর আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা।

তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়, পূর্ব পরিকল্পিতভাবে মান্নানকে চাইনিজ কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে ক্ষত-বিক্ষত মৃতদেহটি সড়কের পাশে ফেলে দেয়। খোরশেদকে গ্রেপ্তার করার পর তার কাছে হত্যায় ব্যবহৃত চাইনিজ কুড়াল পাওয়া যায়। এ হত্যা মামলায় বেশ কিছুদিন কারাভোগও করেছেন খোরশেদ। এর আগেও একটি অস্ত্র মামলায় জেল খেটেছিলেন তিনি।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :143 বার!

JS security