জগন্নাথপুরে তরুণীকে গণধর্ষন, গ্রেফতার ৪ জন

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি :- সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে প্রেমের ফাঁদে ফেলে এক তরুণীকে দল বেঁধে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।  বৃহস্পতিবার এ ঘটনায়  পুলিশ চারজনকে গ্রেফতার  করে আদালতের মাধ্যমে সুনামগঞ্জ জেল হাজতে প্রেরণ করেছে। 

আটককৃতরা হচ্ছে, – উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের খাশিলা গ্রামের আমির উদ্দিনের ছেলে আনোয়ার হোসেন (২৫), হাসিমাবাদ এলাকার পাখি মিয়ার ছেলে ছানা মিয়া (২৬), নেত্রকোনা জেলার (বর্তমান ঠিকানা ইকড়ছই) মৃত সুরুজ মিয়ার ছেলে অনিক মিয়া (১৯) ও বড় মোহাম্মদপুর গ্রামের আব্দুল মানিকের ছেলে সুহেল মিয়া (২৪)।

জানা গেছে, জগন্নাথপুর পৌরসভার হাসিমাবাদ এলাকায় ১৮ বছরের এক তরুণীর সঙ্গে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে তোলেন উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের খাশিলা গ্রামের আমির উদ্দিনের ছেলে আনোয়ার হোসেন। একপর্যায়ে প্রেমের ফাঁদে পেলে ফুসলিয়ে গত রোববার (৫ জুলাই) রাতে ওই তরুণীকে তার বাড়ি থেকে বের করে আনে আনোয়ার হোসেন। পরে উপজেলা সদরের একটি  আবাসিক হোটেলে  গিয়ে উঠেন। মেয়েটিকে হোটেলের একটি কক্ষে আটকে রেখে রাতভর আনোয়ারসহ চার বন্ধু মিলে ধর্ষণ করে। তিনদিন হোটেলের কক্ষে বন্দি থাকার পর গতকাল বুধবার (৮ জুলাই) সকালের দিকে মেয়েটি কৌশলে হোটেল কক্ষ থেকে বের হয়ে বাড়িতে যেতে সক্ষম হয়। 

এ বিষয়ে  ওই দিন বিকেলে তরুণী বাদী হয়ে পাঁচজনের বিরুদ্ধে জগন্নাথপুর থানায় ধর্ষনের মামলা দায়ের করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ বৃহস্পতিবার  অভিযান চালিয়ে চারজনকে আটক করে। তবে অপর অভিযুক্ত হাসিমাবাদ এলাকার ছনর মিয়ার ছেলে সেলন মিয়া (২২) এখনও পলাতক রয়েছে।   

জগন্নাথপুর থানার ওসি ইখতিয়ার উদ্দিন জানান,ধর্ষিতা  তরুণীর মামলার প্রেক্ষিতে চারজনকে আটক করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। আর ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :158 বার!

JS security