জামিল চৌধুরীর উদ্যোগে দিরাই-শাল্লার পুরুষ শুণ্য ৪ মুসলিম গ্রামে ত্রাণ বিতরণ


স্টাফ রিপোর্টারঃ- 
সুনামগঞ্জের শাল্লার নোয়াগাঁও গ্রামের হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িঘরের হামলার অভিযোগে হাজার হাজার অজ্ঞাত আসামি দেওয়ার প্রেক্ষিতে পুরুষ শুণ্য গ্রামের অসহায় নারী শিশুদের তীব্র খাদ্য ও চিকিৎসা সংকট সহ নিরাপত্তাহীন দিরাই উপজেলার সরমঙ্গল ইউনিয়নের নাচনী চন্ডিপুর ধনপুর ও শাল্লা উপজেলার হবিবপুর ইউনিয়নের খাশিপুর গ্রামের দুঃখ দুর্দশা বিভিন্ন অনলাইন মিডিয়ার প্রচার প্রচারণায় প্রকাশিত হওয়ার মাধ্যমে অন্যান্য মিডিয়া এবং বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা (এনজিও) এবং বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠনের দৃষ্টিগোচরে আসে।

আজ এসব অসহায় পরিবারের পাশে ত্রাণ সহায়তা নিয়ে এগিয়ে এসেছেন মানবতার ফেরিওয়ালা বিশিষ্ট সমাজহিতৈষী সিলেটের বৃহৎ এনজিও গ্রামীণ জনকল্যাণ সংসদ ও বাংলাদেশ ফিমেল একাডেমির দিরাই’র প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, বৃহত্তর সিলেটের স্বনামধন্য ব্যক্তিত্ব, দিরাই’র কৃতি সন্তান জামিল চৌধুরী।
খাদ্য, চিকিৎসা ও মানবিক সংকটে থাকা অসহায় পরিবারের মাঝে খানা প্রতি ১০ কেজি চাল, ২ কেজি সোয়াবিন তেল, ৫ কেজি আলু, ২ কেজি পেঁয়াজ, ২ কেজি ডাল, ১ কেজি লবণ, ৫০০ খেজুর প্রতি প্যাকেটে বিতরণ করেছেন।
নাচনী চন্ডিপুর ধনপুর ও খাশিপুর গ্রামের কয়েক শ অসহায় পরিবারের মাঝে আজ ফিরেছে স্বস্তির নিশ্বাস, নিরীহ গ্রামবাসী এই দুর্যোগে প্রথম কোনো অভিভাবক ও সহায়তাকারী পাশে পেয়ে কিছুটা আত্মবিশ্বাস ফিরে পেয়েছেন।
ত্রাণ বিতরণকালে আরও উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সমাজকর্মী ও জাসদ দিরাই উপজেলা সাধারণ সম্পাদক মোঃ আমিনুল ইসলাম আমিন, দিরাই সরমঙ্গল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এহসান চৌধুরী, দিরাই থানার অসি তদন্ত ও এনামুল হক চৌধুরী সহ বিভিন্ন মিডিয়ার সাংবাদিক ও পার্শ্ববর্তী এলাকার মান্যগণ্য ব্যাক্তি বর্গ।
ত্রাণ বিতরণ পূর্ববর্তী বক্তব্যে গ্রামীণ জনকল্যাণ সংসদ ও বাংলাদেশ ফিমেল একাডেমি দিরাই’র প্রতিষ্ঠাতা বিশিষ্ট সমাজসেবি ও শিক্ষানুরাগী জামিল চৌধুরী বলেন শাল্লার নোয়াগাঁও গ্রামের হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িঘরের হামলা অগ্রণ যোগ্য ও নিন্দনীয়।
ঘটনার সাথে প্রকৃত জড়িতদের বিচারের ব্যাপারে আমার আপোষহীন।
এই দুঃখজনক ঘটনার প্রেক্ষিতে মামলায় অজ্ঞাত আসামির তালিকায় থাকার ভয়ে পুরুষ শুণ্য গ্রামের অসহায় নারী শিশুদের পাশে আমি দাঁড়াতে পেরেছি বলে খুব ভালো লাগছে।
যারা ঘটনার সাথে জড়িত নয় তারা নির্ভয়ে বাড়িঘরে ফিরে স্বাভাবিকভাবে জীবন যাপন করেন আমারা সহযোগিতা করবো, সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে নির্দোষ মানুষের পাশে আছি। আমি নোয়াগাঁও গ্রামের হিন্দু সম্প্রদায়ের ক্ষতিগ্রস্ত ঘরবাড়ি পরিদর্শন করেছি এবং এই ন্যাক্কারজনক হামলার নিন্দা জানিয়ে সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে দোষী ব্যক্তিদের বিচার দাবি করেছি।
স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে এসে আমরা চাই-না হাজার বছরের সাম্প্রতিক সম্প্রীতির ব্যত্যয় ঘটিয়ে কেউ বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি করে হিন্দু মুসলিম বিভেদ উষ্কে দিয়ে সামাজিক স্থিতিশীলতা নষ্ট করতে।
মানবিক সংকটে থাকা অসহায় পরিবারের লোকেরা ত্রাণ ও শান্তনা দেওয়ার অভিভাবক পেয়ে আনন্দে বিমোহিত হয়ে জামিল চৌধুরীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :463 বার!

JS security