তালাক গোপন রেখে স্ত্রীর সাথে শারীরিক সম্পর্কের অভিযোগে স্বামীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

 

শেরপুর প্রতিনিধি: শেরপুরে তালাকের পর সেটি গোপন রেখে সাবেক স্ত্রীর সাথে প্রায় আড়াই বছর শারীরিক সম্পর্ক ছিল শাহ আলীর। ঘটনা জানাজানি হলে স্বামীর নামে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন তার স্ত্রী। এরপর ভিকটিম, চিকিৎসক ও তদন্ত কর্মকর্তাসহ ৯ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে সাবেক স্বামীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল। শাহ আলী শ্রীবরদী উপজেলার গড়জরিপা এলাকার কৃষক আবু বকরের ছেলে।

মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) দুপুরে আসামির অনুপস্থিতিতে ওই রায় ঘোষণা করেন বিচারক (জেলা ও দায়রা জজ) মো. আখতারুজ্জামান। একইসাথে তাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়।

যাবজ্জীবন রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করে ট্রাইব্যুনালের পিপি এ্যাডভোকেট গোলাম কিবরিয়া বুলু জানান, দণ্ডপ্রাপ্ত শাহ আলী শেরপুর সদর উপজেলার মধ্য বয়ড়া গ্রামে বিয়ে করে। দাম্পত্য জীবনে শাহ আলীর সাথে তার স্ত্রীর ঝগড়া বিবাদ লেগেই থাকতো। একপর্যায়ে যৌতুকের অভিযোগে শাহ আলীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন তার স্ত্রী। ওই মামলায় ২০১৪ সালের ৪ ডিসেম্বর ট্রাইব্যুনালে হাজির হয়ে শাহ আলী স্ত্রীকে তালাক দিয়েছেন মর্মে কাগজপত্র দাখিল করেন। যেখানে উল্লেখ ছিল শাহ আলী তার স্ত্রীকে ২০১২ সালের ১৩ মে তালাকের নোটিশ পাঠিয়েছে।

অন্যদিকে তালাকের বিষয়টি গোপন রেখে দীর্ঘ প্রায় আড়াই বছর সাবেক স্ত্রীর সাথে শারীরিক সম্পর্ক বহাল রাখায় ২০১৫ সালের ২৫ জানুয়ারি শাহ আলীর বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা করেন প্রতারিত ওই গৃহবধূ।

পরে তদন্ত শেষে ভিকটিম, চিকিৎসক ও তদন্ত কর্মকর্তাসহ ৯ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহন শেষে সাবেক স্বামীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :181 বার!

JS security