তেহরানে দূতাবাস বন্ধ করতে যাচ্ছে মরক্কো

তেহরানে দূতাবাস বন্ধ করতে যাচ্ছে মরক্কো

পারস্য সাগর তীরবর্তী দেশ ইরানের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করতে যাচ্ছে উত্তর আফ্রিকার দেশ মরক্কো। মূলত পশ্চিম সাহারান স্বাধীনতা আন্দোলন পোলিসারিও ফ্রন্টের প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করায় ইরানের সঙ্গে সম্পর্কচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে দেশটি।

দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী এক বিবৃতিতে বলেছেন, রাবাত তেহরানের দূতাবাস বন্ধ ঘোষণা ও ইরানি কূটনৈতিকদের বহিষ্কার করবে। এসময় তেহরান ও লেবাননের হিজবুল্লাহ আন্দোলন পোলিসারিও ফ্রন্টের যোদ্ধাদের প্রশিক্ষণ দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

মরক্কোর পররাষ্ট্রমন্ত্রী নাসের বৌরিতা বলেন, আমাদের কাছে যে তথ্য আছে, তা দিয়ে ইরান সরকারকে দোষী সাব্যস্ত করা সম্ভব। পোলিসারিও ফ্রন্টকে সহায়তা করতে ইরান আলজিয়ার্স দূতাবাসের মাধ্যমে এ সহায়তা পৌঁছে দিচ্ছে।

নাসের বৌরিতা বলেন, তিনি একদিন আগে তেহরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে সেই তথ্যপ্রমাণ দিয়েছেন। তাতে বিদ্রোহী গোষ্ঠীকে অস্ত্র সহায়তার প্রমাণও রয়েছে।

তিনি বলেন, চলতি মাসে পোলিসারিওকে ভূমি থেকে আকাশে হামলায় সক্ষম এসএএম৯, এসএএম১১ ও স্ট্রেলা ক্ষেপণাস্ত্র সরবরাহ করেছে হিজবুল্লাহ। আর এতে সহায়তা করেছে আলজিয়ার্সে অবস্থিত তেহরানের দূতাবাস।

বৌরিতার ভাষ্য, কাজেই তেহরানের দূতাবাস বন্ধ ও কূটনৈতিক সম্পর্কোচ্ছেদের বিকল্প থাকছে না মরক্কোর কাছে।

তবে রাবাতের এ বক্তব্য নিয়ে তেহরানের কাছ থেকে কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। পোলিসারিও ফ্রন্টকে অতীতে সমর্থন দেয়ার নজির আছে তেহরানের। এদিকে অভিযোগ অস্বীকার করে হিজবুল্লাহ বলেছে, যুক্তরাষ্ট্র, ইসরাইল ও সৌদি আরবে চাপে মরক্কো এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

তত্ত সুত্র-বাংলাদেশ প্রতিদিন।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :321 বার!

JS security