দিরাইয়ে জলমহালে দুবৃত্তের বিষ প্রয়োগ-ভেসে উঠছে বিভিন্ন প্রজাতির মাছ।

দিরাই প্রতিনিধি::  সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে রাতের আঁধারে এক ইউপি সদস্যের জলমহালে দুবৃত্তের বিষ প্রয়োগে বিভিন্ন প্রজাতির ছোট-বড় মাছ ভেসে উঠছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এতে জলমহাল মালিকের কয়েক লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতিসহ পরিবেশ দুষণেরও আশঙ্কা করা হচ্ছে। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার (১৭/০২/২০২২) দিবাগত রাতে উপজেলার তাড়ল ইউনিয়নের উজানধল গ্রামের নিকটবর্তী কালনী নদীর কূলে মনুর ঢেরা (জলমহাল) নামে পরিচিত।

সরজমিন ঘুরে দেখা যায়, বাউল সম্রাট আব্দুল করিমের স্মৃতি বিজরিত নিজ গ্রাম উজানধলের পাশ্ববর্তী পানি উন্নয়ন বোর্ডের বাঁধ ঘেষা জলমহালটিতে বিষের প্রভাবে বিভিন্ন ধরনের মাছ, সাঁপ ভেসে উঠছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য বোয়াল, আইর, খাইলা ও বাইম  মাছ রয়েছে। সাঁপগলো বিষধর নয়। গ্রামের যুবকরা দৌড়াদৌড়ি করে মাছ ধরছে।

অধিকাংশ মাছ বিষের প্রভাবে মরে, জলমহালের গভীর জলে চলে যাচ্ছে।এলাকাবাসী জানান, সকালে মাছ ভেসে উঠার খবর পেয়ে তারা দেখতে এসেছেন। কারা এ ঘটনার সাথে জড়িত তারা বুঝতে পারছেন না। স্থানীয় ৩নং ওয়ার্ডের নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য ও জলমহালটি ইজারাদার রজত চৌধুরী আর পশ্চিম আশ্রম গ্রামের আব্দুর রহিম জানান, উজানধলের মনু রঞ্জন বদ্যের মালিকানা জলমহালটি তারা যৌতভাবে দুই বছরের জন্য ইজারা নেন।

এ বছর ছিল ইজারার শেষ বছর। এ মর্মে তারা উক্ত জলমহালে খাটা- বাঁশসহ লক্ষাধিক টাকার খরচ করেন। মাছ ধরার যখন প্রস্তুতি নিচ্ছেন তখন দুবৃত্তের বিষ প্রয়োগে সব কিছু শেষ হয়ে গেল বলে তারা জানান। এছাড়া জলমহালে বিষ গ্রহণকারী ডুবন্ত মৃত মাছগুলো কয়েক ঘণ্টা পর পচে গলে আবার ভেসে উঠলে দুর্গন্ধ ছড়াতে পারে বলে পরিবেশ সচেতন মহল অনেকেই মনে করেন।

যা এলাকার পরিবেশের জন্য হুমকি হতে পারে। এ ব্যাপারে দিরাই থানার ওসি আজিজুর রহমান বলেন, পুলিশ জলমহালটি পরিদর্শ করেছে এবং থানায় সাধারন ডায়রী হয়েছে। মাছ মারা যাচ্ছে তা সঠিক। তবে নাশকতা কী না তা তদন্ত করে বলা যাবে। 

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :568 বার!

JS security