দিরাইয়ে পৌরসভায় প্রতিপক্ষের হামলার আহত মুহিত মারা গেছে

স্টাফ রিপোর্টারঃ- সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের চন্ডিপুর গ্রামের খাতুন পাড়ায় তুচ্ছ ঘটনায় জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় গুরুতর আহত মুহিত মিয়া গতরাত ৮-৪৫ মিনিটের সময় চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় মারা গেছে। ঘটনার বিবরণে জানা যায়, গত ১৫ জানুয়ারি মঙ্গলবার, দিরাই পৌর সভার ১নং ওয়ার্ডের চন্ডিপুর গ্রামের খাতুন পাড়ার মৃত তারিফ উল্লাহর ছেলে মুহিত মিয়ার সাথে প্রতিবেশী আব্দুস শহিদের ছেলে সাহাবুদ্দিনের তুচ্ছ ঘটনায় জেরে বাক বিতন্ডায় হয়। এর জেরে সাহাবুদ্দিনের আত্মীয়স্বজন নিয়ে মুহিতের বাড়িতে হামলা করলে- মুহিত ও তার বড় ভাইয়ের স্ত্রী গর্ভবতী ফুলনেহার বেগম গুরুতর আহত হয়। তাৎক্ষণিক ভাবে দিরাই হাসপাতালে ভর্তি করলে, কর্তব্যরত চিকিৎসক আশংকাজনক অবস্থায় সিলেট রেফার করেন।  সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৩য় তলার ১১নং বেডে চিকিৎসাধীন গুরুতর আহত মুহিত ১সপ্তাহ মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে আজ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। নিহতের ছোট ভাই শুভরাজ বলেন আমরা দরিদ্র তাই টাকার অভাবে সকল ঔষধপত্র জোগান দিতে পারছিনা বলে গুরুতর আঘাত নিয়েই আমার ভাবি বাড়িতে চলে গেছেন, আর ভাই মারা গেলেন। আমার ভাইকে যারা হত্যা করেছে তাদের যাতে সঠিক বিচার হয় এইজন্য জাতির বিবেক সাংবাদিকদের কাছে সহযোগিতা চাই। এছাড়াও নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা যায় সংঘর্ষের দু তিন দিন পর পৌরসভার মেয়র মোশাররফ মিয়া, হাবিজ মাস্টার ও প্রতিবেশী ওহাব আলীকে নিয়ে সালিশ বসে দোষ গুণ না দেখে এবং অতি দরিদ্র এবং গুরুতর আহত মুহিতদেরকে কোনরূপ অর্থ সহায়তা ছাড়া দুই পক্ষকে মিলাইয়া দেন দাবি নিহত পরিবারের। এব্যাপারে দিরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তফা কামাল বলেন-আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি নিহতের পক্ষের অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :1698 বার!

JS security