দিরাইয়ে বেরীবাঁঁধ কেটে দেওয়ায় ইউএনও বরাবরে অভিযোগ

দিরাই (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি:-

সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে তাড়ল ইউনিয়নের তিনটি গ্রামের মানুষ চলাচলের একমাত্র রাস্তা রনভূমি-কাদিপুর বেরীবাঁধ। এ বেরীবাঁধ দিয়ে মানুষ চলাচল না করার জন্য গত কয়েকদিন আগে এলাকার একটি গ্রুপ বাঁধটি কেটে দেয়। বাঁধ কেটে দেওয়ায় মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবরে একটি অভিযোগ করেছেন এলাকাবাসী।

এলাকাবাসী ও অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, উপজেলার তাড়ল ইউনিয়নের রনভূমি, জালালপুর, তাড়ল গ্রামের মানুষের উপজেলা সদরের সাথে যোগাযোগের একমাত্র রাস্তা রনভূমি-কাদিপুর বেরীবাঁধ। বাঁধটি দিয়ে তিনটি ইউনিয়নের মানুষ চলাচল করছেন দীর্ঘ একছর যাবৎ কিন্তু গত কয়েকদিন আগে এলাকার আব্দুস ছালাম, ফয়জুল হক, সুমন মিয়া, টিপু মিয়াসহ একটি গ্রুপ এই বাঁধটি কেটে দেন। এলাকাবাসী অনুরোধ করেও কোনো লাভ হয়নি। বেরীবাঁধ কাটার ফলে এলাকাবাসী পড়েছে নানা ভোগান্তিতে। আমরা এই বেরীবাঁধ কেটে দেওয়ায় তার শাস্তির দাবি জানান।

এলাকাবাসীর পক্ষে নুরুজ্জামান, সোহেল, জহিরুলসহ স্বারকলিপিতে গণস্বাক্ষর করেন। এবং অনুলিপি দিয়েছেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বরাবরেও।
রনভূমি গ্রামের বাসিন্দা মান্না চৌধুরী বলেন, এলাকার আব্দুস ছালামের স্বার্থে বেরীবাঁধটি কেটে দিয়েছেন। আমাদের চলাচলের পথ এখন বন্ধ হয়ে পড়েছে। যারা এই বেরীবাঁধটি কেটেছেন তাদের শাস্তির দাবি জানাই।
অভিযোক্ত আব্দুস ছালাম বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, আমি এ বিষয়ে কিছু জানি না। আমি এলাকায় ছিলাম না। একটা পক্ষ আমাকে হয়রানি করার জন্য এসব করছেন।

এ ব্যাপারে দিরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) মোহাম্মদ সফিউল্লাহ বলেন, আজকে এলাকাবাসী একটি স্বারকলিপি দিয়েছেন। আমরা তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :311 বার!

JS security