দৃষ্টি আকর্ষণ- মদনপুর ঝুঁকিপূর্ণ সেতু পূর্ণাঙ্গ হবে কবে.?

মহি উদ্দিন মিলাদ
সুনামগঞ্জের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের শতশত পরিবহন আর হাজার হাজার মানুষের নিত্যদিনের যাতায়াতের একমাত্র রাস্তা দিরাই পয়েন্ট সংলগ্ন মদনপুর বেইলি ব্রিজ, সরু ও ঝুঁকিপূর্ণ সেতু দিয়ে সুনামগঞ্জ সদর(আংশিক) জামালগঞ্জ উপজেলা, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম দক্ষিণাঞ্চল ও দিরাই শাল্লা সহ নেত্রকোনার কিছু অংশের লক্ষাধিক মানুষের নিত্য চলাচলের মাধ্যম “মদনপুর বেইলি ব্রিজ” সংস্কার অথবা পুনঃনির্মাণ কবে হবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে জানতে চাই!

দিরাই-শাল্লা,জামালগঞ্জ,দক্ষিণ সুনামগন্জ ও সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার কিছু অংশের মানুষের নিত্যদিনের যাওয়া-আাসার রাস্তায় প্রতিদিনই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দিরাই-মদনপুর বেইলী ব্রিজটি পার হতে হয়!
অথচ এমনিতে দিরাই মদনপুর ২৬ কিলোমিটার রাস্তার বেহাল অবস্থা, তদুপরি ব্রিজের হ-য-র-ব-ল ধন্য দশা নিয়ে যেন কোন মাুষের মাথাব্যাথা নেই!! ভাবখানা এরকম মরলে মরুক সাধারণ পাবলিক শুধু আমি বাঁচলেই হলো!!
সুনামগঞ্জ জেলার পাঁচটি সংসদীয় আসনের চারটি আসনের এলাকার মানুষের যাতায়াত এর রাস্তা এই মদনপুর সেতু! অথচ জগন্নাথপুর দক্ষিণ সুনামগঞ্জের মাননীয় সংসদ সদস্য রয়েছেন- অর্থ ও পরিকল্পনা মন্ত্রনালয়ের দ্বায়িত্বে!?
প্রায়শই আসা-যাওয়ার পথে দেখি দরগাপুর মাদ্রাসা সংলগ্ন বেইলী ব্রীজ,বগলাখারা বেইলি ব্রীজ ও মদনপুর বেইলি ব্রীজ টুকটাক মেরামতের কাজ হচ্ছে! কিন্তু ঝুঁকি থাকা সত্বেও দুইটি ছোট ও একটি মধ্যম সারির বেইলি ব্রীজকে পূর্নাঙ্গ ব্রীজে রুপ দিতে কোন কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহন করা হচ্ছেনা।
এমনকি এর আগে উল্লেখিত ছোট দুইটি ব্রীজ ভেঙ্গে জানমালের ক্ষয়ক্ষতি ও হয়েছে বহুবার !!!
শুধু তাই নয় এই ব্রীজ গুলো রক্ষনাবেক্ষনের জন্য এবং যান চলাচলের ক্ষেত্রে ও নেই কোন নিয়ম নীতির বালাই! নেই কোন ওজন পরিমাপক স্কেল!

তাই বিনা বাধায় পাঁচ টনের জায়গায় প্রায় দ্বিগুণ ওজনদার পন্য ও যাত্রী নিয়ে জীবন বাজি রেখে এই ব্রীজগুলি দিয়ে যানবাহন ও মানুষ চলাচল করছে প্রতিনিয়ত।
জানিনা কখন কি ঘটে যায় বুক ধুরু-ধুরু করে কাঁপে দুর্ঘটনার শংকায়।
পরিশেষে এই সমস্যা সমাধানে সকল দ্বায়িত্বশীল কর্তৃপক্ষ, জেলার দায়িত্ব প্রাপ্ত মাননীয় মন্ত্রী ও সংসদ সদস্যগন, প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া, সর্বোপরি সচেতন জনগনের সুদৃষ্টি ও সহযোগীতা কামনা করছি, আশা রাখি অত্র এলাকার মানুষ নিরাশ হবেন না।
পোষ্টটি ভাল লাগলে জনস্বার্থে বেশি বেশি শেয়ার করুন ।।
লেখক: রাজনীতিবিদ ও ফারিয়া কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :1051 বার!

JS security