নাছির চৌধুরীর পক্ষে দিরাই-শাল্লাবাসীকে খোলা চিঠি-এড,পাবেল

সম্মানীত- সুনামগঞ্জ – ২ (দিরাই-শাল্লা) আসনের বিএনপির নেতাকর্মী ও সর্বস্তরের জনসাধারণ।
আসসালামু আলাইকুম ও আদাব।
আমি আপনাদের সন্তান, ভাই, ভাতিজা, বন্ধু ও একজন সহকর্মী হিসেবে শ্রদ্ধা আন্তরিকতা ও ভালবাসা পেয়েছি। আপনারা সবাই জানেন, আমার শ্রদ্ধেয় পিতা মরহুম আব্দুস শহীদ চৌধুরী জন্মলগ্ন থেকে মৃত্যুর পূর্বদিন পর্যন্ত আপনাদের পাশে থাকার চেষ্টা করেছেন। আমিও ছাত্রজীবন থেকে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের একজন কর্মী হিসেবে রাজনীতি শুরু করে আজও বিএনপির একজন কর্মী হিসেবে সুখ দু:খে আপনাদের পাশে থেকে কাজ করছি।
সম্মানিত দিরাই-শাল্লাবাসী, আপনারা জানেন, একটি কঠিন সময়ে আন্দোলনের অংশ হিসেবে আমরা নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করছি। যখন মহান স্বাধীনতার ঘোষক, সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সহধর্মিণী এবং তিনবারের সাবেক সফল প্রধানমন্ত্রী, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া একটি মিথ্যা ও সাজানো মামলার ফরমায়েশী রায়ে নির্জন কারাগারে বন্দী। আর মিথ্যা ও সাজানো মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমানকে মিথ্যা সাজা প্রদান করে দেশের বাহিরে নির্বাসিত  আছেন ।হাজার হাজার নেতাকর্মী, সমর্থক ও সাধারণ মানুষ মিথ্যা মামলায় কারাভোগ করছে। হাজার হাজার মামলায় অসংখ্য নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষ পলাতক এবং দুর্বিষহ জীবন যাপন করছে।
সম্মানীত এলাকাবাসী- আজ আমরা এমন একটি কঠিন পরিস্থিতিতে বসবাস করছি যেখানে আওয়ামীলীগ ছাড়া কারো কোন স্বাধীনতা নেই। একদলীয় শাসন ব্যবস্থা কায়েম করছে। এই অবস্থা চলতে পারে না, এভাবে একটি জাতি একটি রাষ্ট্র চলতে পারে না। এই জুলুম,অন্যায়, অত্যাচার,দুর্নীতি,অবিচার,অনিয়ম থেকে দেশ ও জাতি মুক্তি পেতে হলে। ধানের শীষে ভোটের মাধ্যমে সকল অপকর্মের  জবাব দিতে হবে।
সম্মানীত দিরাই-শাল্লাবাসী- আপনাদের সকলের প্রতি আমার /আমাদের স্ববিনয় অনুরোধ আপনাদের একটি ভোটই পারে দেশে ও জাতিকে এই কঠিন অবস্থা থেকে মুক্ত করতে । তাই আসুন আমরা সবাই মিলে গনতন্ত্রের মুক্তির 
লক্ষ্যে  ৩০ শে ডিসেম্বের সকাল থেকে ভোটকেন্দ্র পাহারা দেই আর ধানের শীষ প্রতীকে জননেতা নাসির উদ্দিন চৌধুরীকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করি।এবং ফলাফল ঘোষণা না হওয়া পর্যন্ত কেন্দ্রে অবস্থান করি।  একদলীয় সরকার নিপাত যাক-গনতন্ত্র মুক্তি পাক- এই প্রত্যাশায়
আপনাদের সকলকে অশেষ ধন্যবাদ।
আল্লাহ হাফেজ ।
তাহির রায়হান চৌধুরী পাবেল (এডভোকেট )

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :616 বার!

JS security