নূর চৌধুরীকে ফেরত আনতে কানাডার আদালতে আইনি লড়াই : প্রধানমন্ত্রী

                                                                                              ফাইল ছবি

গ্লোবাল সিলেট প্রতিনিধিঃ- ‘বঙ্গবন্ধু’ শেখ মুজিবুর রহমানের খুনি নূর চৌধুরীকে দেশে ফেরত পাঠানোর জন্য কানাডার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রবিবার কুইবেকে কানাডার প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে (লে পেটিট ফ্রন্টেন্স) জাস্টিন ট্রুডোর সঙ্গে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে শেখ হাসিনা এ আহ্বান জানান। খবর ইউএনবির। : ‘নূর চৌধুরীকে ফেরত আনতে কানাডার আদালতে লড়বে সরকার’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনি নূর চৌধুরীকে ফেরত আনতে তার সরকার কানাডার আদালতে লড়বে। এ বিষয়ে কানাডা প্রবাসী সকল বাংলাদেশির সাহায্য ও সহযোগিতা প্রত্যাশা করেন। গণতন্ত্র এবং উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে হবে। প্রবাসী বাংলাদেশি এবং দেশে তাদের স্বজনদের সতর্ক থাকতে হবে যাতে আগামীর নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠিত হয়ে দেশের উন্নয়নের গতি বজায় থাকে। : প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম এক ব্রিফিংয়ে জানান, শেখ হাসিনা কানাডার প্রধানমন্ত্রীর কাছে ‘বঙ্গবন্ধু’র আত্মস্বীকৃত খুনিকে অবিলম্বে বের করে দেয়ার অনুরোধ জানান। শেখ হাসিনা ট্রুডোকে বলেন, ‘নূর চৌধুরী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মস্বীকৃত খুনি। বাংলাদেশের আইনে সে একজন অপরাধী। নূর চৌধুরী বহু বছর ধরে কানাডায় বসবাস করছেন।’ নূর চৌধুরীকে দ্রুত বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর জন্য কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণে কানাডার প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করে শেখ হাসিনা আরও বলেন, ‘বাংলাদেশের জনগণ চায় না কোনো অপরাধী আইনের হাত থেকে বেঁচে যাক।’ এসময় ট্রুডো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সমবেদনা জানিয়ে বলেন, আমি বুঝতে পারছি আপনার জন্য বিষয়টি কতটুকু বেদনাদায়ক। আমি এতটুকু বলতে পারি নূর চৌধুরীর কানাডার নাগরিকত্ব নেই। সে কানাডার নাগরিক নয়। ট্রুডো আশ্বস্ত করে বলেন, অপরাধের দায়ে দন্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তিকে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে তার দেশের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা কাজ করে যাচ্ছেন। এসময় রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের পাশে থাকার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কানাডার সরকারকে ধন্যবাদ জানান। তিনি এ সময় অভিযোগ করেন মিয়ানমার বাংলাদেশের সঙ্গে রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানোর বিষয়ে চুক্তি সই করলেও তা বাস্তবায়নের সময় এসে নীরবতা পালন করছে। প্রধানমন্ত্রী আরও জানান, বর্ষা মৌসুমে পাহাড়ি এলাকা থেকে রোহিঙ্গাদের সরিয়ে নেয়া হচ্ছে। আরও ভালোভাবে তাদের থাকার সুযোগ করে দিতে ভাসানচর এলাকায় কাজ চলছে বলে তিনি কানাডার প্রধানমন্ত্রীকে জানান। পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব নজিবুর রহমান এবং পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক এ সময় উপস্থিত ছিলেন। কানাডার প্রধানমন্ত্রীর আমন্ত্রণে জি-সেভেন আউটরিচ সম্মেলনে যোগ দিতে শুক্রবার দুপুরে কুইবেকে পৌঁছান শেখ হাসিনা। সন্ধ্যায় জি-সেভেন আউটরিচ সম্মেলনে যোগ দিতে আসা নেতাদের সম্মানে কানাডার গভর্নর জেনারেলের দেয়া নৈশভোজে অংশ নেন তিনি। কানাডার স্থানীয় সময় সোমবার দুপুরে টরেন্টো থেকে দেশের পথে রওনা হবেন প্রধানমন্ত্রী। দুবাইয়ে যাত্রাবিরতি করে মঙ্গলবার রাতে তার ঢাকা পৌঁছানোর কথা রয়েছে। 

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :224 বার!

JS security