প্রয়াত মেয়র জগলুলের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে নাগরিক শোকসভায়-পরিকল্পনামন্ত্রী

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ- পরিকল্পনামন্ত্রী আলহাজ এম এ মান্নান বলেছেন আমাদের সরকার প্রধান কথায় নয় কাজে বিশ্বাস করেন। শেখ হাসিনা মন্ত্রীদের বলেন কথা কম কাজ বেশি করেন। শহরের উন্নয়নে আমি যতটুকু সহযোগিতা করার প্রয়োজন সবই করবো। শহর এবং হাওর এলাকার উন্নয়নের জন্য আমার অনেক পরিকল্পনা রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী একনেক সভায় আমাকে বলেন আপনারা ভাটি অঞ্চলের মানুষ দরিদ্র মানুষ, গরীব মানুষ, যারা জলমগ্ন এলাকায় বাস করেন তাদের জন্য আরও প্রকল্প নিয়ে আসেন। আমি এগুলো পাস করবো এগুলো মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কথা। তিনি মানুষের কল্যাণের জন্য বিশেষ করে নারীদের জন্য শিশু, বয়স্ক মানুষ , শিক্ষা ও স্বাস্থ্যের জন্য প্রকল্প বাস্তবায়নে বেশি আগ্রহী। এসকল প্রকল্প অগ্রাধিকার ভিত্তিতে অনুমোদন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি আরও বলেন, এ শহর জগলুলের শহর, এ শহর আমাদের সবার শহর। এ শহরকে ঘিরে প্রয়াত মেয়র জগলুলের একগুচ্ছ স্বপ্নের পরিকল্পনা ছিল। শহরে একটি পার্ক, কমিউনিটি সেন্টার, হকার্স মাকেট, সুইমিংপুল, ব্যায়ামাগার নির্মাণের স্বপ্ন ছিল। তার রেখে যাওয়া উন্নয়ন পরিকল্পনা নিয়ে প্রকল্প তৈরী করুন। আমি ঢাকায় বসে এসব প্রকল্প দ্রুত বাস্তবায়ন করে জগলুলের আত্মার প্রতি সম্মান দেখাব। তিনি আরও বলেন, প্রয়াত মেয়র আয়ুব বখত জগলুল  ছিলেন একজন মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান সাদা মনের অসাম্প্রদায়িক মানুষ।  দরিদ্র সাধারণ মানুষের বন্ধু ছিলেন। তিনি একজন অসাম্প্রদায়িক নেতা ও দেশ প্রেমিক অন্যায়ের প্রতিবাদি ছিলেন। তিনি সকল সম্প্রদায়ের মানুষকে সমান সম্মান করতেন। তিনি আরো বলেন,তার পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম হোসেন বখত,তার বড়ভাই প্রয়াত পৌরসভার চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা মনোয়ার বখত নেক ও মেঝোভাই প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান বখত তারা ছিলেন মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের অন্যতম সংগঠক। জগলুলের স্বপ্নঁ ছিল এই শহরে একটি আধুনিক পার্ক নির্মাণ করা,সুইমিং পুল,হকার্স মার্কেট,একটি ভাল মানের কমিউনিটি সেন্টার ও একটি ব্যায়ামাগার নির্মাণে। তিনি বলেন আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন আমাদের কেবিনেটের সদস্যদের নিয়ে একনেক সভায় বসা ছিলেন তিনি বলেছেন ভাটি অঞ্চল হিসেবে সুনামগঞ্জের দরিদ্র ও অসহায় মানুষজন। এই জেলার মানুষের জন্য বেশী করে প্রকল্প তৈরী করে নিয়ে আসেন এগুলো প্রধানমন্ত্রী হিসেবে একনেকে পাশ করে দেব এটা হচ্ছে শেখ হাসিনার কথা বিশেষ করে হাওরাঞ্চলে শিক্ষা,স্বাস্থ্য বাসস্থান,যোগাযোগ ব্যবস্থাসহ নারীদের কল্যাণে তিনি সব সময় কাজ করতে আন্তরিক। মস্ত্রী আরো বলেন,প্রয়াত মেয়র জগলুলের অসমাপ্ত কাজ ও পরিকল্পনা আমরা সুনামগঞ্জের এই ৫ জন সাংসদ ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিলে সম্পন্ন করার প্রতিশ্রুতি দেন এবং তার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন। তিনি শনিবার বিকেল ৪টায় সুনামগঞ্জ পৌরসভা কৃর্তক শহরের সরকারী জুবিলী উচ্চ বিদ্যালয় (বালুর) মাঠে আয়োজিত নাগরিক শোকসভায় প্রয়াত মেয়র আয়ূব বখত জগলুলের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীর আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এসব কথা বলেন। সরকারী জুবিলী মাঠটিত নারী পূরুষ ও শুভানুধ্যায়ীদের উপস্থিতিতে মাঠে তিল ধারনের টাই ছিল না। সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র প্রয়াত জগলুলের আপন ছোটভাই নাদের বখতের সভাপতিত্বে ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা জিতেন্দ্র তালুকদার পিন্টু ও এড. আখতারুজ্জামান সেলিমের যৌথ সঞ্চালনায় নাগরিক শোকসভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সুনামগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য মহিবুর রহমান মানিক,সুনামগঞ্জ -১ আসনের এমপি ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন,সুনামগঞ্জ-৪ আসনের এমপি এড. পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ,সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ¦ মতিউর রহমান,সাবেক মহিলা সাংসদ এড. শামছুন্নাহার বেগম শাহানা,জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ নুরুল হুদা মুকুট,সহ সভাপতি এড.আপ্তাব উদ্দিন,সাধারন সম্পাদক ব্যরিস্টার এম এনামুল কবীর ইমন,জেলা আইনজীবি সমিতির সভাপতি এড.চানঁ মিয়া,জেলা প্রশাসক মোঃ আব্দুল আহাদ,সিভিল সার্জন ডাঃ আশুতোষ দাস,সুনামগঞ্জ সরকারী কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ পরিমল কান্তি দে,জেলা আওয়ামীলেিগর কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ও তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশঅ করুণা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল,এড. নজরুল ইসলাম ও এড. আবেদীন । এছাড়া দোয়ারাবাজার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা ইদ্রিছ আলী বীরপ্রতীক, দিরাই পৌরসভার মেয়র মোঃ মোশারফ মিয়া,জগন্নাথপুর পৌরসভার মেয়ার আলহাজ আব্দুল মনাফ,জেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি মোঃ সেলিম আহমেদ,সুনামগঞ্জ পৌরসভার সাবেক মেয়র ও জেলা যুবলীগের সিনিয়র সদস্য নুরুল ইসলাম বজলু, সদর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি এহসান আহমেদ উজ্জল,জেলা তরুণলীগের সাধারন সম্পাদক একে মিলন আহমেদ প্রমুখ। এছাড়াও আওয়ামীলীগ ও সহযোগি সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য প্রয়াত মেয়র আয়ুব বখত জগলুল ২০১৮ সালের ২রা ফেব্রুয়ারী ঐদিনে ঢাকার একটি হোটেলে পৌরসভার কাজে অবস্থানকালে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে ইন্তেকাল করেন।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :26 বার!

error: Content is protected !!
JS security