ফেক আইডি ও নিউজ পোর্টাল বিড়ম্বনা!

ফেক আইডি ও নিউজ পোর্টাল বিড়ম্বনা!সময়োপযোগী কলাম, লিখেছেন গ্লোবাল সিলেট বার্তা সম্পাদক, সাংবাদিক ও কলামিস্ট এস,এম,ওয়াহিদুল ইসলাম। 

এস,এম,ওয়াহিদুল ইসলাম:

প্রযুক্তির উৎকর্ষে এবং এন্ড্রোয়েড ও স্মার্ট ফোনের সহজ লভ্যতা সোশ্যাল মিডিয়াতে পৃথিবীজুড়ে জড়িত কোটি-কোটি মানুষ। মূলধারার গণমাধ্যম অনেকাংশে দেশেবিদেশে ক্ষমতাসীন সরকারের আজ্ঞাবহ! কেউবা চাপে পড়ে সরকারের দেওয়া রেড লাইন অতিক্রম করতে পারেনা! সংগত কারণে বিকল্প মিডিয়া, অনলাইন নিউজ পোর্টাল, টুইটার, ইন্সটগ্রাম, ফেসবুক এর মত সহজ লভ্য বিকল্প মিয়াতে সম্পৃক্ত হচ্ছে শিক্ষিত হতে অক্ষরজ্ঞান সম্পন্ন বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ। মার্কজুকারবার্গ এর অনবদ্য সৃষ্টি ফেসবুক হল ব্যক্তি থেকে ব্যক্তির সাথে সামাজিক যোগাযোগের সবচেয়ে শক্তিশালী মাধ্যম। নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশ বাংলাদেশে ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা মোট মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর প্রায় অর্ধেকের উপরে। সুন্দর এই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে ঘিরে কিছু অসাধু চক্র তাদের মেধা সৃজন -শীলতার প্রতিকূলে ব্যবহার করছে! গুপ্তচর বৃদ্ধিতে, অন্যের তথ্য হাতিয়ে নিতে, সামরিক ও বেসামরিক গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানে এমনকি ব্যাংক ডাকাতিতে ও হ্যাকারদের কালো থাবা সম্প্রসারিত হয়েছে। কোথাও রাষ্ট্রীয় মদদে কোথাও আবার সংঘবদ্ধ অপরাধী চক্র বা একক ব্যক্তির নোংরামোর বলি হচ্ছে ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান।
ফেক আইডি বিড়ম্বনা:- পিতৃ পরিচয়হীন সন্তানের সমাজে নিজ পরিচয় দিতে লজ্জাবোধ করলেও কিছুকিছু এফবি ফেক আইডি ব্যবহারকারী জারজ সন্তানের ছেয়ে লজ্জাহীন! বাহারি ছদ্মনাম দিয়ে সম্মানী ব্যক্তিদের চরিত্রহনন, অশ্লীলতা প্রচার সহ ব্যক্তিগত কুৎসা রটনা করতে অসাধু ব্যক্তিরা ফেক আইডি ব্যবহার করছে যা সুন্দর সামাজিক মিডিয়াতে নর্দমার কীটের সাথেই তুলনা যোগ্য! তবেঁ অনেকে সরকারি আমলা, জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক নেতাদের ক্ষমতার অপব্যবহার ও ঘুষ দুর্নীতি নিয়ে বস্তুনিষ্ঠ তথ্য লিখার জন্য এবং নিজের নিরাপত্তা জনিত কারণে ছদ্মনাম ব্যবহার করে এফবি পরিচালনা করে আমি এই ক্ষুদ্রাংশ কে সমর্থন করি।

অনলাইন নিউজ পোর্টাল বিড়ম্বনা:-
সল্প খরচ সহজে পরিচালনা যোগ্য অনলাইন নিউজ পোর্টাল শহর-নগর, হাট-বাজারের আনাচেকানাচে সর্বত্র অফিস খোলে দেদার চলছে ডিজিটাল সাংবাদিকতা! অনেক পোর্টালের মালিক-সম্পাদক আছে যারা “অনলাইন নিউজ পোর্টাল” বানানই লিখতে পারবেনা! কিন্ত সে সম্পাদক!? মূলধারা সংবাদপত্র প্রিন্ট মিডিয়াতে মফস্বল পত্রিকার উপজেলা প্রতিনিধির অভিজ্ঞতাও ভাল ভাবে যার নেই! আইটেম নিউজ যে কখনো করেনি বা করার যোগ্যতাই নেই এমন ব্যক্তিরা অনলাইন নিউজ পোর্টাল প্রতিষ্ঠা করে সাংবাদিকতার দোকানদারি খোলে বসেছেন! অনভিজ্ঞতা,হলুদ সাংবাদিকতা ও ব্যবসায়ী ধান্দা নিম্ন মানের নিউজ পরিবেশনা, সম্মানিত ব্যক্তিবর্গ সম্পর্কে রাজনৈতিক ও সামাজিক, আধিপত্য বিস্তার অথবা ব্যবসায়ীক স্বার্থে সস্তা দামে বিক্রি হয়ে, মানহীন নাম সর্বস্ব নিউজ পোর্টাল প্রভাবিত হয়ে সামাজিক শান্তি শৃঙ্খলা ও স্থিতিশীলতা বিনষ্ট করতে  ভূমিকা রাখছে। সারাদেশব্যপী অর্ধলক্ষ নিউজ পোর্টাল সরকারের আইনের বাধ্যবাধকতা ছাড়াই যথেচ্ছা সংবাদ প্রচার করে আসছে। তবেঁ একথা অনস্বীকার্য বহুলাংশে মানসম্পন্ন নিউজ পোর্টাল গুলো পাঠক চাহিদা পূরণে বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন করে যাচ্ছে- সাংবাদিকতার নীতিমালার আওতাভুক্ত থেকে। পাঠকরা মূহুর্তেই যখন ঘটনা তখনি সংবাদ জানতে পারছে। অনেক নতুন প্রতিভাও বেড়িয়ে আসছে ডিজিটাল সাংবাদিকতা থেকে। সরকার যদি সকল অনলাইন নিউজ পোর্টাল কে বিধিবদ্ধ নীতিমালার আওতাভূক্ত করে তাহলে অযথা গুজব ছড়ানো ও অপ -সাংবাদিকতা অনেকাংশে কমে যাবে বলেই আমার বিশ্বাস।

লেখক:-
বার্তা সম্পাদক, গ্লোবাল সিলেট ডটকম ও সুনামগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি:- দৈনিক আলোচিত খবর, সাপ্তাহিক জনপ্রিয়, ঢাকা।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :892 বার!

JS security