বরিশালে শিশু ও নারীদের প্রতি সহিংসতা-নির্যাতন বেড়ে যাওয়ায় মানববন্ধন 

বরিশাল প্রতিনিধি:- মঙ্গলবার (১৮ ই আগস্ট) বেলা ১১টায় নগরীর অশ্বিনী কুমার হলের সামনে বরিশাল শিশু ফোরাম ও বরিশাল যুব ফোরাম যৌথভাবে এ কর্মসূচির আয়োজন করে। 
এসময় অর্ধশত তরুণ স্বাস্থ্যবিধি মেনে হাতে দাবি সম্বলিত প্ল্যাকার্ড ও মুখে কালো কাপড় বেঁধে সহিংসতার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানায় এবং দায়ীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে আহবান করে। কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল শিশু ফোরামের সভাপতি মিমিয়া আক্তার, বরিশাল যুব ফোরামের সভাপতি মোঃ আবু সুফিয়ান শেখ, বাংলাদেশ মডেল ইয়ুথ পার্লামেন্টের চেয়ারপার্সন আমিনুল ইসলাম (ফিরোজ মোস্তফা), ইয়ুথনেট ফর ক্লাইমেট জাস্টিসের সমন্বয়ক সোহানুর রহমান প্রমুখ। 
মানববন্ধন শেষে বরিশালের জেলা প্রশাসক এস.এম অজিয়র রহমানের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। 
স্মারকলিপিতে বলা হয়, কোন শিশু ও নারীর প্রতি কোন ধরনের সহিংসতা ও নির্যাতন গ্রহনযোগ্য নয়। করোনা মহামারীর সময়ে শিশু ও নারীর প্রতি সহিংসতার মাত্রা অনেক বেড়ে গেছে। অনেক জায়গায় বাল্য বিবাহ সংঘঠনের খবরও পাওয়া যাচ্ছে। নারী ও শিশুদের সুরক্ষিত রাখতে সরকারি সংস্থাগুলোকে আরো তৎপর হওয়ার পাশাপাশি দ্রুত মামলা নিষ্পত্তিসহ অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি কামনা করা হয়। 
এছাড়া সরকারি প্রতিষ্ঠানে এবং গৃহকর্মে নিয়োজিত শিশুদের অবস্থা জানার জন্য বিশেষ উদ্যোগ নেয়ারও দাবি করা হয়। 
জেলা প্রশাসক স্মরকলিপি গ্রহণ করে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়ার আশ্বাস প্রদান করেন।

উল্লেখ্য, বরিশাল সিটি করপোরেশনের ১৬নং ওয়ার্ডের রিফুউজি কলোনি এলাকার বাসিন্দা বুলবুল বিশ্বাস ও বকুল বিশ্বাসের হাতে এক শিশু গৃহ কর্মী নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়েছে। ওই শিশু গৃহকর্মীকে নির্যাতনের খবর জানতে পেরে উদ্যোগী হয়ে বরিশাল কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুরুল ইসলাম শিশুটিকে উদ্ধার করেন।

অন্যদিকে নগরীর পলাশপুরের ৫ নম্বর ওয়াডের্র বাসিন্দা আ. সালাম তার কিশোরী মেয়ে নগরের একটি মহিলা মাদ্রাসার ৮ম শ্রেণির ছাত্রীকে (১৪) ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ উঠেছে। বিষয়টি কিশোরীর মায়ের নজরে এলে আ. ছালামকে মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। মেয়েকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগে গত ২৯ জুলাই নগরীর কাউনিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন তার মা মাসুমা বেগম। মামলা দায়েরের পর অভিযুক্ত আ. ছালাম কাউনিয়া থানা পুলিশের কাছে আত্মসমর্পন করে। 
এছাড়া সোমবার (১০ আগস্ট)  নগরীর বাজার রোডে জিনের আছর ছাড়ানোর নামে দশম  শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে কথিত কবিরাজের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের পর অভিযুক্ত কবিরাজ শংকর দেবনাথকে (৬০) পুলিশ গ্রেফতার করেছে।
অপরদিকে যশোর শিশু সংশোধন কেন্দ্রে শিশুদের প্রতি সহিংসতা ও ৪ জনকে পিটিয়ে মেরে ফেলার ঘটনা ঘটে। 

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :178 বার!

JS security