বাংলাদেশে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ও অত্যাধুনিক ফ্লাওয়ার মিল চালু


বাংলাদেশে চালু হলো বিশ্বের সবচেয়ে বড় এবং অত্যাধুনিক ফ্লাওয়ার মিল।

সিটি গ্রুপের মালিকানাধীন সিটি ইকোনোমিক জোনে স্থাপন করা হয়েছে সম্পূর্ণ স্বয়ংক্রিয় এই কারখানা। যেখানে কাঁচামাল থেকে পণ্য উৎপাদন ও গাড়িতে বোঝাই পর্যন্ত কোনো পর্যায়েই লাগবে না হাতের স্পর্শ।

২০১৯ সালের এপ্রিলে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক থেকে মাত্র দুই কিলোমিটার ভেতরে নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে দেশের ৬ষ্ঠ বেসরকারি ‘সিটি ইকোনোমিক জোনে’র যাত্রা শুরু হয়।

উদ্বোধনের দুই বছর না পেরুতেই এই ইকোনোমিক জোনে বিশ্বের সবচেয়ে বড় স্বয়ংক্রিয় ফ্লাওয়ার মিল চালু করল ভোগ্যপণ্য প্রস্তুতকারী অন্যতম বৃহৎ শিল্পগোষ্ঠী সিটি গ্রুপ।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, অত্যাধুনিক এই কারখানার যাবতীয় যন্ত্রাংশ আনা হয়েছে সুইজারল্যান্ডের বিখ্যাত প্রতিষ্ঠান বুলার থেকে। এখানে গম থেকে পাথর কিংবা লোহাজাতীয় উপাদান আলাদা করা হয় স্বয়ংক্রিয় মেশিনে। গমের চেয়ে বড় কিংবা ছোট দানা বাছাই করতে রয়েছে ভেগা সেপারেটর মেশিন। গমে ভুট্টা, সয়াবিন, ডাবলির মিশ্রণ শনাক্ত করছে ৩০টি ক্যামেরা সম্বলিত কালার সটার। গমের পুষ্টিগুণ পরিমাপের জন্য রয়েছে এনআইআর মেশিন। হাতের স্পর্শ ছাড়া এসব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার পরই ক্রাশিংয়ে পাঠানো হয় গম।

সিটি গ্রুপের পরিচালক মোহাম্মদ হাসান বলেন, ‘আমরা সব সময় চাই আমাদের দেশের জনগণের কাছে সবচেয়ে ভালো এবং উন্নত মানের পণ্যটাই পৌঁছাতে। ভালো পণ্য জনগণের হাতে পৌঁছাতে আমরা চেষ্টা করছি এবং চেষ্টা করে যাব।’

কারখানার ভেতরে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য রয়েছে অটোমেশন হাউজ কিপিং সিস্টেম। মেঝেতে ময়লা পড়ার সঙ্গে সঙ্গে স্বয়ংক্রিয়ভাবে টেনে নেবে এই মেশিন। কারখানা পরিদর্শনে গিয়ে মুগ্ধ আগত অতিথিরাও।

প্রায় দেড় হাজার কর্মী করোনাকালে এ কারখানায় কাজের সুযোগ পেয়েছেন। এই ফ্লাওয়ার মিলের দৈনিক উৎপাদন ক্ষমতা পাঁচ হাজার টন আটা, ময়দা, সুজি। কারখানাটিতে অন্তত ৬শ’ নারী কর্মী কাজের সুযোগ পাচ্ছে বলে জানিয়েছে সিটি গ্রুপ।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :106 বার!

JS security