বিশ্বনাথের মাদক সম্রাজ্ঞী সাবিনা ডিবির হাতে গ্রেফতার

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি:-  ইয়াবা জগতের রাণী মুখোশধারী ব্যবসায়ী সাবিনা আক্তার (২৪)’কে গ্রেপ্তার করেছে হবিগঞ্জ জেলার গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)। গ্রেপ্তারকৃত সাবিনা সিলেটের বিশ্বনাথ থানার রামপাশা ইউনিয়নের পাঠাকইন গ্রামের মৃত আলকাছ আলীর পুত্র কুখ্যাত মাদক সম্রাট তবারক আলী ওরফে ইয়াবা সুমনের স্ত্রী।

হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে ১ কোটি ৮১ লাখ টাকা মূল্যের ৬১ হাজার পিছ ইয়াবা ট্যাবলেটসহ দুই নারীকে আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সাবিনাকে গ্রেফতার করা হয়।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে সিলেটের দক্ষিণ সুরমা থানার অতিরবাড়িস্থ শাহী মনু মিয়া কমিউনিটি সেন্টার কমপ্লেক্স থেকে মাদক সম্রাজ্ঞী সাবিনা আক্তারকে গ্রেপ্তার করে হবিগঞ্জের ডিবি পুলিশ। সাবিনা আক্তার গ্রেপ্তার অভিযানে হবিগঞ্জ ডিবি পুলিশের নেতৃত্ব দেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) রবিউল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হেড কোয়ার্টার) এস এম রাজু আহমদ, এসআই আবুল কালাম আজাদ।

উল্লেখ্য, বুধবার (৫ ফেব্রুয়ারি) রাত দেড়টার দিকে সিলেট থেকে ঢাকাগামী হানিফ পরিবতনের একটি বাস থেকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এসআই আবুল কালাম আজাদের নেতৃত্বে হবিগঞ্জ ডিবি পুলিশের একটি দল ১ কোটি ৮১ লাখ টাকা মূল্যের ৬১ হাজার পিছ ইয়াবাসহ ‘নাহিদা ও শাহিনা’ নামের দুজন নারী মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে। গ্রেফতারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে নাহিদা ও শাহিনা হবিগঞ্জ ডিবি পুলিশকে জানায় সিলেটের বিশ্বনাথ থানার রামপাশা ইউনিয়নের পাঠাকইন গ্রামের মৃত আলকাছ আলীর পুত্র কুখ্যাত মাদকসম্রাট তবারক আলী ওরফে ইয়াবা সুমন ও তার স্ত্রী ইয়াবা জগতের রাণী মুখোশধারী ব্যবসায়ী সাবিনা আক্তার তাদেরকে (নাহিদা-সাবিনা) দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে ইয়াবা বহন/বিক্রয় করে আসছেন।

৬১ হাজার পিছ ইয়াবা জব্দ ও সাবিনাসহ ৩ জনকে গ্রেপ্তারের সত্যতা নিশ্চিত করে হবিগঞ্জ ডিবি পুলিশের এসআই আবুল কালাম আজাদ বলেন, এ ঘটনায় হবিগঞ্জের চুনারুঘাট থানায় মামলা হয়েছে। মামলা নং ৬ (তাং ৬.০২.২০ইং)।

তবারক-সাবিনাসহ গ্রেপ্তারকৃতদের অভিযুক্ত করে হবিগঞ্জের চুনারুঘাট থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে জানিয়ে সিলেটের বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) শামীম মুসা বলেন, মাদক নির্মূলে আইন-শৃংখলা বাহিনী কাজ করে যাচ্ছে। উপজেলার কোথাও মাদক বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেলে সাথে সাথেই আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :218 বার!

JS security