মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আবরার ফাহাদের পক্ষ থেকে আকুতি

লেখকঃ আবু বকর সিদ্দিক

বিদায় প্রিয় বাংলাদেশ বিদায় প্রিয় বিদ্যাপীঠ।

অশ্রুসিক্ত নয়নে করুণ মর্মবেদী যন্ত্রণাদায়ক মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করে পরপারের ঠিকানায় সাড়ে তিন হাত কবরের বাসিন্দা- বুয়েটে পড়ুয়া আপনার ছেলে আবরার ফাহাদ।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বুকে পাজরে তিল তিল করে একটি স্বপ্নের বীজ বপন করেছিলাম বুয়েটে লেখাপড়া শেষ করে ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ করে আপনাকে পদ্মাসেতুর নকশা উপহার দিব বলে।
পদ্মাসেতু তৈরী করা জন্য বহু টাকা খরচ করে বিদেশ থেকে নকশা তৈরী করা হয়েছে, আমি আবরার ফাহাদ আপাকে এবং প্রিয় মাতৃভূমিকে ফ্রী নকশা তৈরী করে দিতাম- এই স্বাধীন বাংলার ১৬ কোটি মানুষ কে, তখন আমার বুক গর্বে ভরে যেতো আমি বাংলাদেশে জন্মেছি বলে। এই দেশটাকে অনেক কিছু দিতে চেয়েছিলাম, কিন্ত আমার দূর্ভাগ্য আমি দিতে পারিনি তার আগেই কিছু অমানুষ আমাকে মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করিয়ে অপারের ঠিকানায় পাঠিয়ে দিল! মাননীয় প্রধানমন্ত্রীঃ-
প্রিয় জন হারানোর যে কত বেদনা ও শোকের তা আমার চেয়ে আপনার বেশী জানা।
আমার মায়ের অশ্রুগুলি টলটল করে বলছে আবরার ফাহাদ তুই কোথায় কেমন আছিস বাবা?  মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমি তার জবাব দিতে পারি না, আমি স্তব্ধ, আমি নির্বাক! কবরের দৃষ্টিকোণ থেকে শুধু বোবার মত চেয়ে দেখছি মায়ের করুণ আর্তনাদ ও কান্নার সূর।
আপনি কি আমার মায়ের চোখের জলের ভাষা বুঝেতে পারেন না মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। আমার বুকের পাজর ছিল একখন্ড স্বাধীন বাংলা।
মৃত্যুর সময় চিৎকার করে বলেছিলাম আমাকে বাঁচাও বাঁচাও কিন্ত আমার চিৎকারের শব্দ কারো কান পর্যন্ত পৌছায়নি!
ওরা আমাকে মেরেছে নির্মম নিষ্ঠুর ভাবে, বলার মত ভাষায় রাখেনি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে ওরা মেরেছে আমার কোনো দুঃখ নেই কিন্ত দেশের অনেক বড় ক্ষতি  করেছে একজন দেশ প্রেমিকের মৃত্যু ঘটিয়ে। এদের প্রতি একটু খেয়ার রাখেন যারা বুয়েটে লেখা পড়া করে ভবিষ্যতে দেশের কর্ণধার হবে, যারা দেশকে অনেক কিছু দিবে তাদের মৃত্যু যেনো আমি আবরার ফাহাদের মত করুণ মৃত্যু না হয়।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা একবার আমি আবরার ফাহাদের কবরে পাশে দাঁড়ালে শুনতে পাবেন আমি চিৎকার করে বলছি আমি দেশকে  ভালোবাসী,আমাকে যারা নির্মম ভাবে মেরেছে তাদের বিচার কি হবে না এই স্বাধীন বাংলার মাটিতে লক্ষ কোটি শহীদ  রক্তে রজ্ঞিত লাল সবুজের বাংলায়?
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমার আত্মা তখনই শান্তি পাবে যখন আমি পরপার থেকে দেখতে পাব যারা আমাকে মেরেছে তাদের কে আপনি ফাঁসির মঞ্চে দাড় করিয়েছেন। আপনি তো একজন মমতাময়ী নারী? সন্তানের রক্ত দেখলে মায়ের কলিজা চিৎকার করে বলে বাবা তোর কি হয়েছে। আমার মায়ের কান্নার শব্দ কি আপনি শুনতে পান না? ছেলে হারানো শোকে মা কাতর হয়ে আপনার নিকট অপরাধীদের বিচারের দাবী করছে।
আশাকরি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমি আবরার ফাহাদ এর খোলা চিঠি যদি কারো মাধ্যমে আপনার দৃষ্টিগোছর হয়, তবে বুঝে নিবেন আমি আবরার ফাহাদ করব থেকে চিৎকার করে বলছি, আমাকে যারা মেরেছে তাদের ফাঁসি দাবী করছি
তবেই আমার আত্মা শান্তি পাবে।
আপনি জাতির পিতার সুযোগ্যা কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনা আপনার মাধ্যমেই সম্ভব আমার হত্যার বিচার।
ইতি।
,, বাংলার লক্ষ আবরার ফাহাদ,,
পক্ষে
লেখকঃ আবু বকর সিদ্দিক
সহ সভাপতি
বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন, কেন্দ্রীয় কমিটি।
তারিখঃ- ১০-১০-২০১৯

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :63 বার!

error: Content is protected !!
JS security