মুম্বাই হামলার মাস্টারমাইন্ড হাফিজ সাঈদকে মুক্তি দিয়েছে পাকিস্তান

গ্লোবাল ডেস্ক :-   এক মাস না হতেই মুম্বাই হা, ম, লার মাস্টারমাইন্ড হাফিজ সাঈদকে মুক্তি দিয়েছে পাকিস্তান। মঙ্গলবার ভারত জম্মু-কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বাতিল করে দেওয়ার পরেই সাঈদকে মুক্তি দেয় দেশটির সরকার। এদিকে মাঙ্গলবার পাকিস্তান পার্লামেন্টে ইমরান খান হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন, ‘কাশ্মীরের যা পরিস্থিতি ফের পুলওয়ামার মতো ঘটনা ঘটতে পারে।’

ভারতের দাবি, গত ফেব্রুয়ারি মাসে ভারতের জম্মু ও কাশ্মীর রাজ্যের পুলওয়ামার ঘটনার পিছনে আন্তর্জাতিক জঙ্গি মাসুদ আজহার রয়েছে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, গত জুনে হাফিজ সাঈদকে গ্রে, প্তা, র করে পাকিস্তান পঞ্জাবের কাউন্টার টেররিজম ডিপার্টমেন্ট। জঙ্গিদের আর্থিক সাহায্য করার অভিযোগ এনে তাকে গ্রে, প্তা, র করা হয়।

তবে, কূটনৈতিক বিশেষজ্ঞদের একাংশের মতে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে সাক্ষাতের আগে হাফিজ়কে গ্রে, প্তা, র করে সন্ত্রাসাবাদ বিরোধী মনোভাবের বার্তা দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন ইমরান খান। অনেকে তার এই সিদ্ধান্তকে লোক দেখানো বলে কটাক্ষ করেন। আজ হাফিজকে মুক্তি দিয়েই তা প্রমাণিত করল পাকিস্তান।

ভারতীয় কূটনৈতিক বিশেষজ্ঞদের একাংশ মনে করেন, হাফিজ সাঈদ পাকিস্তান গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই-এর জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। কাশ্মীরে হিংসা ছড়াতে হাফিজকে কাজে লাগাতে পারে আইএসআই, এমনটাই আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

গতকালই পাকিস্তানের সংসদে ইমরান খান জানিয়েছেন, কাশ্মীর নিয়ে তারা শেষ পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাবে। হাফিজকে মুক্তি দিয়ে সেই আশঙ্কাই আরও জোরালো হলো বলে ভারতীয় বিশেষজ্ঞরা বলছেন। কাশ্মীরের জনগণকে ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন মোদি

সংবিধান থেকে ৩৭০ ধারা বাতিলে কাশ্মিরবাসী লাভবান হয়েছেন বলে মন্তব্য করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বৃহস্পতিবার রাতে জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে তিনি একথা বলেন।

ভাষণে কাশ্মিরবাসী তাদের প্রাপ্য কোনো অধিকার থেকে বঞ্চিত হবেন না বলেও উল্লেখ করেন তিনি। বলেন, জম্মু কাশ্মীরে নতুন যুগের সূচনা হলো।বক্তব্যে জম্মু-কাশ্মীরকে কিছু সময়ের জন্যই কেবল কেন্দ্রীয় সরকারের অধিনে রাখা হবে বলেও জানান নরেন্দ্র মোদি।তিনি বলেন,

আমি ভরসা দিচ্ছি খুব শিগগিরিই জম্মু-কাশ্মীরের জনগণ তাদের প্রতিনিধি নির্বাচিত করতে পারবেন।তবে লাদাখে কেন্দ্রীয় শাসন জারি রাখার কথাও জানান তিনি।

ভাষণে তিনি আরো বলেন, জম্মু-কাশ্মীর, লাদাখের ভাই-বোনেদের প্রতি আমার আহ্বান, আসুন, আমরা সবাই মিলে নতুন জম্মু-কাশ্মীর ও নতুন লাদাখ তৈরি করি। আমরা সবাই মিলে সেই স্বপ্ন পূরণ করব।তিনি বলেন, তাদের (কাশ্মীরি) সবার স্বপ্ন ছিল সমৃদ্ধ ও সুরক্ষিত কাশ্মীর তৈরির। মোদি বলেন, জম্মু-কাশ্মীরের জন্য অনেকে শহিদ হয়েছেন, অনেকে প্রাণ দিয়েছেন। কার্গিলেও অনেকে বলিদান দিয়েছেন, তাদেরও সম্মান জানানো হয়েছে। তাদের রাষ্ট্রীয় সম্মান দেওয়া হয়েছে।

জম্মু-কাশ্মীরকে ভারতের মুকুট উল্লেখ করে মোদি বলেন, কাশ্মীর আমাদের দেশের মুকুট। যারা ঈদে ঘরে ফিরতে চান, তাদের সব রকম সাহায্য করবে সরকার। জম্মু-কাশ্মীরের মানুষের ঈদ পালন করতে যাতে কোনও অসুবিধা না হয়, তার জন্য সব রকম ব্যবস্থা করা হবে। এসময় ঈদুল আজহা উপলক্ষে সবাইকে শুভেচ্ছা জানান মোদি। ভারতের প্রধানমন্ত্রী বলেন, ৩৭০ ধারা বতিলের পর মুষ্টিমেয় কিছু লোক অশান্তি সৃষ্টি করতে চাইছে। তবে জম্মু-কাশ্মীরের মানুষ এটাকে স্বাগত জানিয়েছেন। জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখের মানুষকে এটা বোঝাতে চাই যে তাদের সুখ-দুঃখ থেকে আমরা আলাদা নই।

তিনি বলেন, সংসদে কে ভোট দিয়েছে, কে দেয়নি— এই ঊর্ধ্বে উঠে জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখের উন্নয়নে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে।মোদি বলেন, বিরোধীরা যে বক্তব্য রাখছে, তার জবাব দেওয়ার চেষ্টা করছে সরকার। কিন্তু এর বিরুদ্ধে যারা, তাদের ভাবনাকেও আমরা সম্মান করি। গণতন্ত্রে এটাই নিয়ম।

সৌরশক্তি উৎপাদনের ক্ষেত্রে লাদাখ সারা দেশের দিশা হতে পারে উল্লেখ করে মোদি বলেন, লাদাখের মানুষের ভাল শিক্ষা ব্যবস্থা, স্বাস্থ্য ব্যবস্থা, যোগাযোগ ব্যবস্থা মিলবে। লাদাখ হতে চলেছে সবচেয়ে বড় পর্যটনস্থল। কেন্দ্র সরকার লাদাখের মানুষের কাছে কেন্দ্রীয় প্রকল্পগুলির সুবিধা পৌঁছে দেবে। লাদাখে এক ধরনের গাছ আবিষ্কার হয়েছে যা ভেষজ ঔষধি ও সবজি হিসেবে সারা ফেলেছে। সেটির কথা উল্লেখ করে মোদি বলেন, এই মহৌষধী কি সারা বিশ্বে পৌঁছে দেওয়ার প্রয়োজন নেই?

খেলার দুনিয়ায় কাশ্মীরের যুবকরা দেশের মান আরও বাড়াবে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, খেলাধুলোর প্রভূত উন্নতি হবে, সারা বিশ্বে তাদের প্রতিভা দেখানোর সুযোগ পাবে। সরকার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তাতে জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখের যুব সম্প্রদায় অনেক এগিয়ে যাবে। বলিউড, তেলুগু, তামিল সিনেমার লোকজনকে আর্জি জানাব, ফের উপত্যকায় শুটিংয়ে আসতে। এবার নতুন ব্যবস্থাপনায় সেই অবস্থা আবার ফিরে আসবে কিন্তু অশান্তির জন্য সেটা বন্ধ ছিল।

তিনি বলেন, একটা সময় ছিল, সিনেমার শুটিংয়ের জন্য জম্মু-কাশ্মীরই ছিল অন্যতম গন্তব্য। উল্লেখ্য, গত সোমবার সংবিধানের ৩৭০ ধারা বিলোপ করে ভারতের অধীনে থাকা জম্মু-কাশ্মীরকে ভেঙে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার ঘোষণা দেয় ক্ষমতাসীন বিজেপি। সেদিন থেকেই ইন্টারনেট, মোবাইলসহ বহির্বিশ্বের সঙ্গে সকল ধরণের যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ করে রাখা হয়েছে।শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত কারফিউ ভঙ্গ করে রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করছে কাশ্মীরের মানুষ।বিক্ষোভে ভারতীয় বাহিনীর হামলায় ৬ জন প্রাণ হারিয়েছেন এবং রাজনৈতিক নেতাসহ অন্তত ৫ শতাধিক লোককে বন্দি করা হয়েছে।আটকদের মধ্যে আছেন রাজ্যটির দুই সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি এবং ওমর আবদুল্লাহও।

কাশ্মীরের সবগুলো রাজনৈতিক, ধর্মীয়, সাংস্কৃতিক দল ও গোষ্ঠীর জোট হুরিয়াত কনফারেন্সের চেয়ারম্যান মিরওয়াইজ ওমর ফারুককে কয়েক ঘণ্টার জন্য গ্রেফতার করা হলেও পরবর্তীতে তাকে গৃহবন্দী করে রাখা হয়েছে।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :205 বার!

error: Content is protected !!
JS security