রাতের আঁধারে কাটা হয়েছে টাঙ্গুয়ার হাওড়ের বাঁধ তলিয়ে যাচ্ছে পাকা ধান

রাতের আঁধারে কাটা হয়েছে টাঙ্গুয়ার হাওড়ের বাঁধ তলিয়ে যাচ্ছে পাকা ধান

 

 

 

 

বিপ্লব রায় সুনামগঞ্জ থেকে:– রাতের

আঁধারে ফসল রক্ষা বাঁধ কেটে দেয়ায় হুমকির মুখে পড়েছে সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার টাঙ্গুয়ার হাওড়ের প্রায় দেড় হাজার হেক্টর জমির পাকা ধান। পানি ঢুকে পড়ায় অনেক কৃষক ধান কাটতে পারছেন না। ধারণা করা হচ্ছে, মাছ ধরার জন্য জেলেরা এ কাজ করেছেন। এ ঘটনায় এরই মধ্যে একজনকে আটক করেছে প্রশাসন।

স্থানীয়রা জানায়, গত বৃহস্পতিবার শেষ রাতের দিকে কিছু লোক নাউটানা খালের বাঁধটি কেটে দেয়। হাওড়ে হুড়হুড় করে ঢুকে পড়ছে পানি। গতকাল দুপুর পর্যন্ত টাঙ্গুয়ার হাওড়ের প্রায় ৪০ শতাংশ বোরো ধানের জমিতে পানি প্রবেশ করেছে। বৈরী আবহাওয়ায় নদীতে পানি বাড়ছে। ফলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে যাওয়ার শঙ্কায় আছেন কৃষকরা। বাঁধটি দিয়ে পানি প্রবেশ বন্ধ করা না হলে এ পানি টাঙ্গুয়ার হাওড়ের আরো ১০টি বাঁধে আঘাত করবে। এ ঘটনার পর টাঙ্গুয়ার হাওড়ের এরালিয়াকোনা, গনিয়াকুরি, লামারগুল, টানেরগুল, নান্দিয়া, মাজেরগুল, টুঙ্গামারা, সুনাডুবি, গলগলিয়া, শামসাগর হাওড়ের ধান হুমকির মুখে পড়েছে।

এদিকে উপজেলার উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের স্থানীয় জেলেরা বান্দিয়া জাল দিয়ে মাছ ধরার জন্য রাতের আঁধারে বাঁধটি কেটে দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এর সঙ্গে টাঙ্গুয়ার হাওড়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির লোকেরা জড়িত বলেও অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। এ ব্যাপারে টাঙ্গুয়া হাওড়ের সহব্যবস্থাপনা কমিটির কোষাধ্যক্ষ খসরুল আলম বলেন, কারা বাঁধটি কেটে দিয়েছে, আমরা জানি না। তবে তদন্ত করা হচ্ছে।

স্থানীয় কৃষকরা অভিযোগ করেন, গত বছর অকালবন্যায় তলিয়ে যায় হাওড়ের পাকা ধান। এ বছরও কিছু মত্স্যজীবীর লোভের কারণে তারা ক্ষতিগ্রস্ত হতে বসেছেন। ফসল রক্ষা বাঁধ কেটে দেয়ায় হাজারখানেক হেক্টর জমি পানিতে তলিয়ে যাচ্ছে। প্রতি বছরই যদি কৃষকের ভাগ্যে এমন ঘটে, তাহলে কৃষকরা বাঁচবেন কী করে! গত বছরের ক্ষতি পুষিয়ে নেয়ার যে স্বপ্ন দেখছিলেন, তা আর পূরণ না হওয়ার দুঃস্বপ্ন দেখছেন অনেকে।

এ বাঁধ যারা কেটে দিয়েছেন, তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রশাসনের কাছে জোর দাবি জানিয়েছেন তাহিরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল। তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পূর্ণেন্দ্র দেব জানান, এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। ভাঙা বাঁধ পরিদর্শনে গিয়ে মাছ ধরার সময় এক জেলেকে আটক করা হয়েছে। তিনি উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নের হুকুমপুর গ্রামের তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে আনোয়ার হোসেন।

এ ঘটনায় গত বৃহস্পতিবার বিকালে টাঙ্গুয়ার হাওড়ের কমিউনিটি গার্ডের সদস্য খসরুল আলম বাদী হয়ে তাহিরপুর থানায় আটজনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতনামা আরো ৯০ জনকে আসামি করে একটি মামলা করেছেন।

উল্লেখ্য, বাঁধটি পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) আওতাধীন নয়। এটি টাঙ্গুয়ার হাওড়ের কমিউনিটি সদস্যদের তৈরি করা বাঁধ। আর এ হাওড়ের অন্তর্গত ছোট-বড় ১০টি হাওড়ে উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নের ২০টি গ্রামের কৃষকের জমি রয়েছে।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :292 বার!

error: Content is protected !!
JS security