সিলেটে ২৮মার্চ হরতালের সমর্থনে গণতান্ত্রিক জোটের মশাল মিছিল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ-  দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে সোমবার (২৮ মার্চ) বাম গণতান্ত্রিক জোটের ডাকা অর্ধদিবস হরতালের সমর্থনে সিলেটে মশাল মিছিল করেছে বাম গণতান্ত্রিক জোট সিলেট জেলা।

রবিবার (২৭ মার্চ) সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় নগরের রেজিস্ট্রারি মাঠ থেকে এ মশাল মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি নগরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে আম্বরখানা পয়েন্টে গিয়ে সমাবেশে মিলিত হয়।

বাম গণতান্ত্রিক জোট সিলেট জেলার সমন্বয়ক ও বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) সিলেট জেলার সাধারণ সম্পাদক খায়রুল হাছানের সভাপতিত্বে ও বাসদ জেলা সদস্য প্রণব জ্যোতি পালের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য দেন, সিপিবি সিলেট বিভাগের সমন্বয়ক আনোয়ার হোসেন সুমন, বাসদ (মার্কসবাদী) জেলা আহ্বায়ক উজ্জল রায়, বাসদ জেলা সমন্বয়ক আবু জাফর, সিপিবি সিলেট জেলার সভাপতি সৈয়দ ফরহাদ হোসেন, ওয়ার্কার্স পার্টি (মার্কসবাদী) জেলা সভাপতি সিরাজ আহমদ, বাসদ (মার্কসবাদী) নেতা হুমায়ুন রশিদ সুয়েব, যুব ইউনিয়ন সিলেট জেলার সাধারণ সম্পাদক নিরঞ্জন দাস খোকন, ছাত্র ফ্রন্ট নগর সভাপতি সঞ্জয় কান্ত দাস, ছাত্র ইউনিয়ন সিলেট জেলার সাধারণ সম্পাদক নাহিদ হাসান প্রান্তিক, ছাত্র ইউনিয়নের আহ্বায়ক মনীষা ওয়াহিদ প্রমুখ।

এ সময় বক্তারা বলেন, ‘জান বাঁচাতে এ হরতাল কোনো দলের নয়, সব মানুষের। তাই নিজে হরতাল পালন করুন। অন্যকে উৎসাহিত করুন। হরতাল সফল করতে ভূমিকা নিন। সোমবার ভোর থেকেই সিলেটের রাজপথে বাম জোটের নেতাকর্মীরা শান্তিপূর্ণভাবে হরতাল পালন করবে।’

বক্তারা বলেন, ‘চাল-ডাল-পিঁয়াজ-সিলিন্ডার গ্যাসসহ অতি জরুরি খাদ্যদ্রব্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির যৌক্তিক কোনো কারণ নেই। আন্তর্জাতিক বাজারে ভোজ্যতেলের যা দাম বেড়েছে; দেশে তার তুলনায় অনেক বেশি দাম বাড়ানো হয়েছে। আর গ্যাস, বিদ্যুৎ ও পানির দাম বাড়ানো হচ্ছে পুরোপুরি খামখেয়ালিভাবে। এ সব খাতের চুরি, দুর্নীতি, লুটপাট আর অব্যবস্থাপনার দায় চাপানো হচ্ছে ভোক্তাদের ওপর। আসলে সরকার ও অসৎ ব্যবসায়ীরা এক মহাসিণ্ডিকেট গড়ে তুলেছে। কথিত উন্নয়নের কথা বলে নিজেদের চুরি, দুর্নীতি ও লুটপাটকে আড়াল করার চেষ্টা করছে। এভাবে সঙ্কীর্ণ স্বার্থে দেশ ও জনগণকে তারা অনিশ্চিত অন্ধকারে ঠেলে দিয়েছে। এ অবস্থায় আন্দোলন গড়ে তোলা ছাড়া এ থেকে মুক্তি নেই।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :71 বার!

JS security