সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে মানববন্ধন – ছাত্রলীগের বাধায় পণ্ড

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :- সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে ডাকা মানববন্ধন কর্মসূচীতে বাধা দিয়েছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। সোমাবার (২৬ আগস্ট) বেলা ১১টায় এই মানবন্ধনের আয়োজন করে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে দুর্নীতি দমন ও সুচিকিৎসা নিশ্চিতকরণ কমিটি।

ছাত্রলীগের দাবি, মানববন্ধনের আড়ালে এরা সরকারবিরোধী ষড়যন্ত্র করছেন। তাই তারা মানববন্ধনে বাধা দিয়েছেন।

জেলা জাসদের (ইনু) সাধারণ সম্পাদক ও দুর্নীতি দমন কমটির আহ্বায়ক ইনামুজ্জামান চৌধুরী এনাম জানান, আজ বেলা ১১টায় ট্রাফিক পয়েন্ট এলাকায় পূর্বনির্ধারিত সময়ে মানববন্ধন শুরু করলে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের বাধার মুখে তা পণ্ড হয়। অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা এড়াতে পুলিশ এসে হস্তক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনে।

কমিটি’র আহ্বায়ক ইনামুজ্জামান চৌধুরী এনাম বলেন, সাধারণ মানুষের ভোগান্তি লাঘবে অনিময়-দুর্নীতির বিরুদ্ধে এই মানববন্ধনের আয়োজন করেছিলেন তারা। কিন্তু কোনও কারণ ছাড়ায় জেলা ছাত্রলীগ সভাপতির নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা এসে মাননবন্ধনে বাধা দেন।

তিনি আরও বলেন, ট্রাফিক পয়েন্ট মাননবন্ধন করতে না পেরে আমরা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে গিয়ে মানববন্ধন করতে চাইলে সেখানেও বাধা দেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। পরে আমরা বিষয়টি জেলা প্রশাসককে অবহিত করতে তার কার্যালয়ে যাই। কিন্তু তাকে না পেয়ে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসককে হাসপাতালের অনিয়ম ও দুর্নীতির বিষয়গুলো জানাই। আগামী বুধবার গণস্বাক্ষর সম্বলিত স্মারকলিপি প্রদানের জন্য জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে আমাদেরকে টেলিফোনে জানানো হয়েছে।

বাধা প্রসঙ্গে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি দীপঙ্কর কান্তি দে বলেন, হাসপাতালের অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরোধিতার নামে মানববন্ধন আয়োজন করে ছাত্রদল ও জামায়াত-শিবিরের লোকরা। যেখানে তারা সরকারবিরাধী নানা ধরনের বক্তব্য প্রদান করছিলেন। পার্টি অফিস কাছে থাকায় সেখান থেকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা গিয়ে তাদের বাধা দিয়েছেন।

সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শহিদুর রহমান বলেন, বেলা ১১টার দিকে ট্রাফিক পয়েন্ট এলাকায় একটি মানববন্ধনের আয়োজন করা হলে ছাত্রলীগ এসে বাধা দেয়। আইনশৃঙখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার স্বার্থে পুলিশ দুপক্ষকে দুদিকে সরিয়ে দিয়েছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হায়াতুন্নবী বলেন, পরিস্থিতি এখন শান্ত রয়েছে।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :113 বার!

error: Content is protected !!
JS security