১১২ টি রোগ সম্পর্কে তথ্য না দিলে ব্রিটেনে ড্রাইভারদের ১০০০ পাউন্ড জরিমানা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ব্রিটেনে সকল শ্রেনীর ড্রাইভারদের ১১২টি অসুস্থতা চিকিৎসা পরিস্থিতি সম্পর্কে গাড়ির লাইসেন্সিং সংস্থা (ডিবিএলএ) কে জানাতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। কোন ব্যক্তি গাড়ী এক্সিডেন্ট করলে তার মধ্যে এই রোগগুলি থাকলে তাকে ১ হাজার পাউন্ড পরিমান জরিমানা দিতে হবে এবং তার লাইসেন্সও বাতিল হতে পারে।

ড্রাইভারদের এইসমস্ত রোগের লক্ষন দেখা দিলে গাড়ি নিরাপদে চালানোর ক্ষমতাকে প্রভাবিত করতে পারে। এর মধ্যে উল্লেখ্য যোগ্য হচ্ছে ডায়াবেটিস বা ইনসুলিন গ্রহণ, মুর্ছা যাওয়া, হার্টের অবস্থা, মৃগীরোগ, স্ট্রোক বা গ্লুকোমা রোগ থাকলেও তাদেরকে ডিভিএলকে জানাতে হবে।

এক গবেষণায় জানা যায়, এই সমস্ত অসুস্থ ড্রাইভারগন পথ দুর্ঘটনার জন্য বেশী দায়ী। নতুন ড্রাইভারদের জন্য এ নিয়ম বলব্ থাকবে এবং লাইসেন্স প্রাপ্তরা এ সমস্ত রোগের শিকার হলে তাদেরকেও ডিভিএলকে অবশ্যই জানাতে হবে। ড্রাইভার এবং গাড়ির লাইসেন্সিং সংস্থা (ডিবিএলএ) কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে বৃটেনে প্রায় ১ মিলিয়ন ডাইভারের স্বাস্থ্য সমস্যা রয়েছে যা তারা ডিভিএলকে রিপোর্ট করেনি।
ড্রাইভারদের রোগের অবস্থা জানানোর পর ডিভিএল কর্তৃপক্ষ ড্রাইভারদের চিক্সিার অবস্থা বা অক্ষমতার মুল্যায়ন করবে এবং সিদ্ধান্ত নেবে। উদাহরণস্বরূপ, আপনাকে একটি নতুন ড্রাইভিং লাইসেন্স পেতে হতে পারে। যদি আপনার একটি ছোট লাইসেন্স যেমন এক, দুই, তিন বা পাঁচ বছরের জন্য আপনার গাড়ি চালাতে পারবেন কিনা।
বিশেষ নিয়ন্ত্রণ ফিট করে এবং কিছু ক্ষেত্রে তারা সিদ্ধান্ত নেবে যে আপনাকে ড্রাইভিং বন্ধ করতে হবে কিনা এবং আপনার লাইসেন্স সম্পুর্ণভাবে ছেড়ে দিতে হবে কিনা। আপনাকে অবশ্যই আপনার লাইসেন্স ডিভিএলএ এর কাছে সমর্পণ করতে হবে। যদি নিম্মলিখিত অসুস্থতা আপনার মধ্যে থেকে থাকে আপনাকে তিন মাস বা তার বেশি সময় ধরে ডাক্তার আপনাকে গাড়ি চালাতে নিষেধ করবে। চিক্সিা শেষে আপনাকে আবারও গাড়ি চালাতে দিতে পারে। এছাড়াও আপনার এসমস্ত রোগের তথ্য গোপন রাখলে এবং আপনি দুর্ঘটনার শিকার হলে আপনাকে ১ হাজার পাউন্ডও পরিমান জরিমানা দিতে হবে।
যে সমস্ত ১১২টি চিক্সিা অবস্থার সম্পুর্ণ তালিকা যা অবশ্যই ডিভিএলকে ঘোষণা করতে হবে তা হলো ; অ্যাগোরাফোবিয়া, অ্যালকোহল সমস্যা, আলঝেইমার রোগ, অঙ্গচ্চেছদ, অ্যাঞ্জিওমাস বা ক্যাভারনোমাস, অ্যানকিলোজিং স্পন্ডিলাইটিস, নার্ভাস ক্ষুধাহীনতা, উদ্বেগ, অর্টিক অ্যানিউরিজম, অ্যারাকনয়েড সিস্ট, অ্যারিথমিয়া ধমনী বিকৃতি, বাত, অ্যাটাক্সিয়া, এইডস, বাইপোলার ডিসঅর্ডার (ম্যানিক ডিপ্রেশন), রক্ত জমাট, রক্তচাপ, ব্র্যাচিয়াল প্লোক্সাস ইনজুরি, মস্তিস্কের ফোড়া, সিস্ট বা এনসেফালাইটিস, ব্রেন অ্যানিউরিজম, মস্তিস্কে রক্তক্ষরণজনিত, ঘা সংক্রান্ত মস্তিস্কের আঘাত, ব্রেন টিউমার, ভাঙ্গা অঙ্গ, ব্রুগাডা সিন্ড্রোম, হোল সার্জারি, ক্যান্সার, ছানি, ক্যাটাপ্লেক্সি, শিরাস্থ থ্র“োসিস, সেরিব্রার পালসি, জ্ঞানীয় সমস্যা, জন্মগত হৃদরোগ, ফিট, খিঁচুনি রোগ, দেজা ভু ড্রাইভিং, ডিফিব্রিলেটর, ডিমেনশিয়া, বিষন্নতা, ডায়াবেটিস, ডিপ্লোপিয়া (দ্বৈত দৃষ্টি), মাথা ঘোরা বা ভার্টিগো, ড্রাগ ব্যবহার, মস্তিস্ক, প্রয়োজনীয় কম্পন, চোখের অবস্থা, গুলিয়ান বার সিন্ড্রম, মাথায় আঘাত, হৃদরোগ, হার্ট ফেইলিউর, হৃদস্পন্দন, হেমিয়ানোপিয়া ও উচ্চচ রক্তচাপ।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :220 বার!

JS security