১১ বছরের শিশু কন্যা ধর্ষিত

সিলেট শহরে বিকৃত মস্তিস্কের পিতা কর্তৃক ১২ বছরের নিজ শিশু কন্যাকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ধর্ষিত শিশুর মায়ের শাহপরাণ থানা দায়েরকৃত অভিযোগের প্রেক্ষিতে জানা যায়- সিলেটের মেজরটিলা ইসলামপুরের ঝরনা বেগমের (ছদ্ম নাম) ১৩ বছর পূর্বে বিয়ে হয় নগরীর কতোয়ালী থানাধীন বারুতখানার উত্তরণ-১৮ (ব্রিটিশ বাড়ীর) মৃত আব্দুল মান্নান ওরফে লক্ষী মিয়ার ছেলে সবুজ আহমদ এর সাথে।

ঝরনা ৩ মেয়ে সন্তান নিয়ে সংসার করে আসছেন শাহপরান থানার আলুরতল এলাকায়। বিগত ১৯ নভেম্বর পিতা নামের বিকৃত মস্তিষ্কের সবুজ আহমদ (৪০) শিশু মেয়েকে ফুঁসলিয়ে চা বাগানে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। মেয়ে বাড়িতে এসে মা-কে সব খুলে বলে নিজ পিতা মারপিট করে ও হত্যার ভয়ভীতি দেখিয়ে বিগত ৬ মাস ধরে একাধিক ধর্ষণ করে আসছে,

সর্বশেষ গত ১৫ নভেম্বর খালিঘরে একা পেয়ে তাকে ধর্ষণ করে পাষণ্ড পিতা। ঝরণা বিষয়টি শুনে মেয়েকে দাদীর কাছে পাটিয়ে দেন। এর পর থেকে স্বামী সবুজ আহমদ স্ত্রী ঝরণাকে অত্যাচার নির্যাতন বাড়িয়ে দেয় এবং বিষয়টি কাউকে অবহীত করলে অথবা বাড়াবাড়ি করলে তালাক দেওয়ার ও মা-মেয়েকে হত্যার হুমকি দেয়! পরে বিষয়টি এক পর্যায় দাদীর বাড়ি থেকে শিশু কন্যাকে এনে নানীর বাড়িতে পাঠিয়ে দেয় স্বজনরা ।

তার আচরণে পরিবর্তন না আসায় এবং পরিবারের পক্ষ থেকেও যথাপযোক্ত ব্যবস্থা না নেওয়ায় ২৭ ডিসেম্বর সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের শাহপরান রহঃ থানায় মামলা দায়ের করেছেন ঝরণা বেগম।

বাংলাদেশ মানবাধিকার সংস্থার লিগ্যাল এইড সেলের প্যানেল এর মাধ্যমে- বাদীর এই মামলা ও ভিকটিমকে আইনী সহযোগিতা করছেন বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থা সিলেট বিভাগীয় প্রতিনিধি, মানবাধিকার কর্মী সৈয়দ আকরাম আল সাহান চৌধুরী ।
বিষয়টি ডিকেএস নিউজ ২৪ ডটকমকে কে নিশ্চিত করেছেন মানবাধিকার কর্মী সৈয়দ আকরাম আল সাহান।
এবং ঘাতক পিতা পলাতক রয়েছে, শীঘ্রই থাকে গ্রেফতার করার দাবী জানান মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থা সিলেট বিভাগীয় প্রতিনিধি, মানবাধিকার কর্মী সৈয়দ আকরাম আল সাহান চৌধুরী ও এলাকার সর্বস্তরের মানুষ।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :66 বার!

JS security