৯ দিন পর ভারত ফেরত দিল ঠাকুরগাঁওয়ের আরশাদের মরদেহ

মাহামুদ আহসান হাবিব,ঠাকুরগাঁও :- চিকিৎসা করাতে গিয়ে ভারতের উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে অস্বাভাবিক মৃত্যু হয় আরশাদ আলির (৬৩)। তাঁর বাড়ী ঠাকুরগাঁও জেলার বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার পাড়িয়া ইউনিয়নের ইউলিয়াটুলি গ্রামে। তিনি স্থানীয় আলিম উদ্দীন নামে এক ব্যক্তিকে সাথে নিয়ে ভারতে চিকিৎসার জন্য গিয়েছিলেন। গত সোমবার (২৭ জানুয়ারি) তার মুত্যু হলেও পাসপোর্টের উল্লেখিত নামের সাথে জাতীয় পরিচয়পত্রের মিল না থাকার কারণে মরদেহ ফেরত দেয়নি ভারতের বালুবাড়ী ক্যাম্পের বিএসএফ সদস্যরা।

মৃত্যুর ৯ দিন পর সোমবার রাত ১১টায় দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্ধর দিয়ে বাংলাদেশ পুলিশ ও বিজিবি’র সহায়তায় তাকে নিজ বাড়ীতে নিয়ে আসা হয়েছে বলে জানান তার দুই ছেলে নুরজামান ও নুর ইসলাম। এর আগে সোমবার (২৭ জানুয়ারি) রাতে উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হলে মঙ্গলবার (২৮ জানুয়ারি) হাসপাতালের মর্গে ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে দেহের ময়নাতদন্ত করা হয় বলে ভারতীয় গণমাধ্যম সুত্রে জানা গেছে। ময়না তদন্তের পর বাকি দিনগুলি হাসপাতালের মর্গেই তার মরদেহ পড়ে ছিল। আরশাদ আলী ছেলে নুর ইসলাম জানান, বাবার পাসপোর্ট মোহাম্মদ উল্লেখ ছিল না।

আর জাতীয় পরিচয়পত্রে মোহাম্মদ উল্লেখ রয়েছে। বাবার মৃত্যুর পর আমরা মরদেহ চাইলে নাম নিয়ে জটিলতা সৃষ্টি হয়। পরে আমরা হিলির স্থলবন্দরের পুলিশ ও বিজিবি সদস্যদের সহযোগিতা নিয়ে মরদেহ ফেরত চাইলে সোমবার রাতে ফেরত দেয় বিএসএফ সদস্যরা। মঙ্গলবার সন্ধায় আরশাদ আলির নামাজে জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়েছে। বালিয়াডাঙ্গী থানার ওসি হাসিবুল ইসলাম জানান, পরিবারের লোকজন বিষয়টি আমাদের জানাননি। জানালে আমরা আমাদের জায়গা থেকে সহযোগিতা করার চেষ্টা করতাম।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :169 বার!

JS security