Day: November 7, 2020

গল্পটা তোমার আমার ।। নন্দিনী খান

নিরব ভীষণ ডিস্টার্বড ছিল। পার্সোনাল আর প্রফেশনাল লাইফ নিয়ে খুব ব্যস্ত, বিরক্ত। কিছুই যেন ঠিক মতো হয়ে উঠছিল না।‌ ঠিক এমন একটি সময়ে অধরা নামের একজনের কাছ থেকে একটা মেসেজ এলো "হাই, হাও আর ইউ" । নিরব প্রথমে ভাবলো উত্তর দিবে কিনা।‌ পরে ভাবলো উত্তর দেই, দেখি কি হয়। নিরব উত্তরে "হ্যালো" বললো। সেই থেকে অধরার সাথে প্রতিদিন নিরবের কথা হতো। প্রতিদিন প্রতিটি মুহূর্ত প্রতিটি সেকেন্ড ওরা কানেক্টেড থাকতো। অধরা মাঝে মাঝে রাগ করতো, কিন্তু আবার ভাবতো, যদি নিরবের ভালো লাগে, তাহলে সমস্যা কি । কথাই তো বলছি। এভাবে কিছুদিন গেল , অধরা বুঝতে পারলো হয়তো নিরব কিছু করার চেষ্টা করছে। হয়তো পারছে না বা হয়ে উঠছে না। নিরব ভীষণ ভালোবাসা চাইতো, অধরাও তাকে ভালোবাসা দিতে চাইতো, কিন্তু ভাবতো নিরব যদি আরও কিছু চেয়ে বসে। অধরা এটা মানতো যে দুজন দুর্বল মানুষ কখনই একটা ভালো জীবন পার করতে পারে না। তাই সে নিরবকে বি

গল্পটা তোমার আমার ।। নন্দিনী খান

নিরব ভীষণ ডিস্টার্বড ছিল। পার্সোনাল আর প্রফেশনাল লাইফ নিয়ে খুব ব্যস্ত, বিরক্ত। কিছুই যেন ঠিক মতো হয়ে উঠছিল না।‌ ঠিক এমন একটি সময়ে অধরা নামের একজনের কাছ থেকে একটা মেসেজ এলো "হাই, হাও আর ইউ" । নিরব প্রথমে ভাবলো উত্তর দিবে কিনা।‌ পরে ভাবলো উত্তর দেই, দেখি কি হয়। নিরব উত্তরে "হ্যালো" বললো। সেই থেকে অধরার সাথে প্রতিদিন  নিরবের কথা হতো। প্রতিদিন প্রতিটি মুহূর্ত প্রতিটি সেকেন্ড ওরা কানেক্টেড থাকতো। অধরা মাঝে মাঝে রাগ করতো, কিন্তু আবার ভাবতো, যদি নিরবের ভালো লাগে, তাহলে সমস্যা কি । কথাই তো বলছি। এভাবে কিছুদিন গেল , অধরা বুঝতে পারলো হয়তো নিরব কিছু করার চেষ্টা করছে। হয়তো পারছে না বা হয়ে উঠছে না। নিরব ভীষণ ভালোবাসা চাইতো, অধরাও তাকে ভালোবাসা দিতে চাইতো, কিন্তু ভাবতো নিরব যদি আরও কিছু চেয়ে বসে। অধরা এটা মানতো যে দুজন দুর্বল মানুষ কখনই একটা ভালো জীবন পার করতে পারে না। তাই সে নিরবকে বিয়ে দে
JS security