মুক্ত কলাম

সংস্কৃতির আত্মানুসন্ধানে পহেলা বৈশাখের অগ্রযাত্রা – নজরুল ইসলাম তোফা।।

সংস্কৃতির আত্মানুসন্ধানে পহেলা বৈশাখের অগ্রযাত্রা – নজরুল ইসলাম তোফা।।


Warning: printf(): Too few arguments in /home/globalsylhet/public_html/wp-content/themes/viral/inc/template-tags.php on line 113
বাংলা পঞ্জিকার ১ম মাস বৈশাখের ১ তারিখেই হয় ‘পয়লা বৈশাখ’ বা ‘পহেলা বৈশাখ’। বাংলা সনের এ দিনটিকেই বলা হয় বাংলা ‘নববর্ষ’। এমন দিনটিকেই বাংলাদেশের মানুষ খুব উৎসবের সঙ্গেই পালন করে আসছে। শুভ ‘নববর্ষ’ উদযাপনে সকল শ্রেণি-পেশার মানুষ জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে অংশ গ্রহণ করে থাকে। বাঙালি মেয়েরা ঐতিহ্যবাহী পোশাক শাড়ী এবং পুরুষেরা পাজামা-পাঞ্জাবি পরিধানে খুব বিনোদনপূর্ণ ভাবে এ দিনটি উৎযাপন করে। আবার প্রত্যেক ঘরে ঘরেই বিশেষ ধরণের খাবার তৈরি হয়। যেমন: পান্তা-ইলিশ এবং নানা রকমের পিঠাপুলির ব্যবস্থা সহ হরেক রকমের খাবার। সর্বোপরি বলাই যায় যে, সব স্তরের বাঙালি জাতি তাদের সামর্থ্য অনুযায়ী নতুন বছরের প্রথমে ঘরে ঘরে ভালো খাবার খায় এবং মানুষদের প্রতিও ভেদা ভেদ দূর করেই যেন মানবতা বোধকে জাগ্রত করে। এমন এই নববর্ষের দিনটিতেই অনেক দরিদ্র, নিপীড়িত, অসহায় মানুষদের পাশাপাশি দাঁড়ানোর প্রেরণার একটি বৃহৎ পটভূমিই বলা চ
বেগম জিয়ার প্যারোলে মুক্তির কথাবার্তা বনাম কাল নাগিনীর বিষপানে আত্মহত্যা — গোলাম মওলা রনি:

বেগম জিয়ার প্যারোলে মুক্তির কথাবার্তা বনাম কাল নাগিনীর বিষপানে আত্মহত্যা — গোলাম মওলা রনি:


Warning: printf(): Too few arguments in /home/globalsylhet/public_html/wp-content/themes/viral/inc/template-tags.php on line 113
মানুষের জীবনে এমন কতগুলো মুহুর্ত আসে যখন চিৎকার চেচামেচি, হৈ হুল্লোড়, আনন্দ-ফুর্তি অথবা কান্নাকাটির তুলনায় নীরব থাকাটা বেশী অর্থপূর্ন হয়ে ওঠে এবং সেই নীরব থাকার শক্তি যে কতোবড় এবং কতোটা মহান হয়ে উঠতে পারে তার প্রমান বিশ্ব রাজনীতিতে বহুবার দৃশ্যমান হয়েছে। একইভাবে মুক্ত মানুষের চেয়ে কারাবন্দী মানুষের ক্ষমতা, কর্তৃত্ব, মান-সম্মান ও মর্যাদা যে কতো ব্যাপক ও বিশাল হতে পারে তারও শত শত প্রমান ইতিহাসে রয়েছে। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে উপরোক্ত কথাগুলো আমার হঠাৎ করেই মনে হলো কারাবন্দী সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম জিয়াকে নিয়ে সাম্প্রতিক সময়ে ক্ষমতাসীনদের দরদ ও মমত্ববোধের বাহারী রংচটা কথাবার্তা শুনে। ক্ষমতাবানরা বলছেন- বেগম জিয়া দরখাস্ত করলে তাকে প্যারোলে মুক্তির বিষয়ে বিবেচনা করা হবে। বিএনপি বলছে – তারা প্যারোলে নিয়ে ভাবছেন না। কারণ বেগম জিয়া মরে গেলেও প্যারোলের শর্তে জেল থেকে বের হবেন না। বেগম জিয়ার অতীত ই
কিন্টার গার্টেনের ফাকে পশ্চিমা সংস্কৃতি কেন?

কিন্টার গার্টেনের ফাকে পশ্চিমা সংস্কৃতি কেন?


Warning: printf(): Too few arguments in /home/globalsylhet/public_html/wp-content/themes/viral/inc/template-tags.php on line 113
                 ফাইল ছবি মুহাম্মদ হাবিলুর রহমান জুয়েলঃ- বাঙ্গালী! শব্দটা একটা অতি গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু আমরা যা জানি এদেশের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মূল শিক্ষা হল - অ, আ, ক, খ ইত্যাদি৷ এখন যদি এর পরিবর্তে প্রথমেই চলে আসে A,B,C,D তবে বাংলা ভাষার প্রয়োজন কি? হ্যা তাই- যার বাস্তবতা বর্তমান যুব সমাজের একটা অংশ। যারা বাংলা কথার চেয়ে বেশিরভাগ সময় যেকোনো পরিবেশে ব্যবহার করে ইংরেজি কিছু কমন শব্দ। অধিকাংশ সময় দেখা যায় রিকশা চালক, সবজি বিক্রেতা থেকে এমন কোন ব্যক্তি বাদ নেই যে তাদেরকে বিভিন্ন ইংরেজি শব্দ দিয়ে ইঙ্গিত করে এরা। আসলে আজ আমাদের বাংলা ভাষা কোথায়? এখনও শতকরা নব্বই ভাগ তরুণ শুদ্ধভাবে বাংলা ভাষা লিখতে ও বলতে জানে না। এর মূল কারন কি? প্রাথমিক শিক্ষাঃ প্রত্যেক শিশু তার প্রাথমিক শিক্ষা অর্জন করে পরিবার ও বিদ্যালয় থেকে৷ যা এখন আর পরিবার বা বিদ্যালয় বলা যায় না- বলতে হবে ফেমিলি, কিন্টার গার্টেন। না হ
জ্ঞানহীন মানুষের হাতেই শুরু শিক্ষা ও সাক্ষরতা

জ্ঞানহীন মানুষের হাতেই শুরু শিক্ষা ও সাক্ষরতা


Warning: printf(): Too few arguments in /home/globalsylhet/public_html/wp-content/themes/viral/inc/template-tags.php on line 113
নজরুল ইসলাম তোফা:: প্রস্তর যুগের আদিম মানুষ তাদের ক্রিয়াকলাপ, দেবতাকুলের শক্তি এবং লীলা বৈশিষ্ট্যের উপরেই যেন অন্ধবিশ্বাস ছিল, তখন ছিল না মনের ভাব প্রকাশের কোনো "ভাষা"। ঋতু চক্রের পরিবর্তনে জীবনকর্মের প্রয়োজনের তাগিদেই ধীরে ধীরেই নিরক্ষর মানুষ জাতিরাই সৃষ্টি করা শিখ ছিল ''ভাষা''। দীর্ঘ পথের পরিক্রমায় এমন নিরক্ষর মানব জাতি ভাষার সহিত অক্ষর আবিষ্কার করতে শিখে।এই মানব সমাজের উন্নয়ন বা অগ্রগমনের ইতিহাস যেমন বহুধা বিচিত্র। আবার সে উন্নয়নের পশ্চাতেই ক্রিয়াশীল শিক্ষার ইতিহাসও তেমনি "বিচিত্র কিংবা গতিময়"। এক একটি 'দেশ এবং জাতি' নানা ভাবেই নানা উদ্দেশ্য নিয়ে তাদের নিজস্ব শিক্ষা ব্যবস্থা চালু করে, তাদের সু-শিক্ষার ভাষা গড়ে তোলে। তাদেরই ভৌগোলিক, সামাজিক, ঐতিহাসিক, নৃতাত্ত্বিক এবং সাংস্কৃতিক সহ ইত্যাদি উপাদান বারবারই সে সকল ব্যবস্থার পরিবর্তন এনেই যেন 'নবীকরণ ও সংস্কার' চালিয়ে সুশিক্ষার উন্নয়ন ঘটিয়ে
জাতীয় স্বাধীনতা ২৬ মার্চের মধ্য দিয়ে ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশের পূর্ণ বিজয়

জাতীয় স্বাধীনতা ২৬ মার্চের মধ্য দিয়ে ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশের পূর্ণ বিজয়


Warning: printf(): Too few arguments in /home/globalsylhet/public_html/wp-content/themes/viral/inc/template-tags.php on line 113
নজরুল ইসলাম তোফা:: মুক্তিযুদ্ধ আমাদের গর্ব ও অহংকার। এ মুুুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে আমরা পেয়েছি স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধুর- সেই সোনার বাংলাদেশ এবং দিনেদিনেই এসে দাঁড়িয়েছে প্রযুক্তি নির্ভর ডিজিটাল বাংলাদেশ। ১৯৪৭ সালে ব্রিটিশের নিকট থেকে এদেশের জনগণ স্বাধীনতা লাভের পর থেকেই পাকিস্তানের- দুই প্রদেশের মধ্যে যেন বিভিন্ন প্রকার ইস্যু নিয়ে সম্পর্কের অবনতি ঘটে, সেগুলোর মধ্যে কিছু তুলে ধরা যেতে পারে যেমন ভূূমিসংস্কার, রাষ্ট্রভাষা, অর্থনীতি বা প্রশাসনের কার্যক্রমের মধ্যে দু'প্রদেশের অনেক বৈষম্য, প্রাদেশিক স্বায়ত্ত শাসন, পূর্ব পাকিস্তানের প্রতিরক্ষা ও নানা ধরনের সংশ্লিষ্ট বিষয়েই সংঘাত ঘটে। মূলত ভাষা আন্দোলন থেকে বাংলাদেশের মুুুক্তিযুদ্ধের পটভূমি তৈরি হতে থাকে। ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনকে স্বাধীনতা যুদ্ধের সূচনা বলা যায়। বাঙালিরা ১৯৫৪ সালের নির্বাচনে জয়ী হওয়ার পর ক্ষমতায় গিয়েও পূর্ব পাকিস্তান
ভালবাসা দিবসের ইতিকথা ও বঞ্চিত প্রকৃত প্রেমিক সংঘের আন্দোলন!

ভালবাসা দিবসের ইতিকথা ও বঞ্চিত প্রকৃত প্রেমিক সংঘের আন্দোলন!


Warning: printf(): Too few arguments in /home/globalsylhet/public_html/wp-content/themes/viral/inc/template-tags.php on line 113
এস এম ওয়াহিদুল ইসলামঃ- বিশ্ব ভালবাসা দিবসে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) বঞ্চিত প্রকৃত প্রেমিক সংঘের ব্যানারে  প্রতিবাদ মিছিল ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে শিক্ষার্থীদের একাংশ। ভালবাসা দিবসে নিজেরা প্রেম বঞ্চিত দাবি করে আমার ভাই সিঙ্গেল কেন জবাব চাই, কেউ পাবে, কেউ পাবে না তা হবে না তা হবে না’, ‘দুষ্টু প্রেমিক নিপাত যাক, প্রকৃত প্রেমিক মুক্তি পাক স্লোগান দিতে থাকেন তারা!! এ-ই হলো দেশের সর্বোচ্চ একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের ১৪ ফেব্রুয়ারি উদযাপনের অবস্থা!! গতকাল বিশ্ব ভালবাসা দিবসের প্রভাব আমারা দেখেছি বিভিন্ন পত্রপত্রিকার রিপোর্টে---শুধুমাত্র ফরিদপুর শহরে পুলিশের অভিযানে ৩১ জন তরুণ-তরুণী আটক হয়েছেন! এ-র মধ্যে দুইজন অপ্রাপ্তবয়স্ক!! আমার বিশ্বাস এমন অভিযান যদি সারাদেশে পরিচালিত হতো তাহলে হাজার হাজার উচ্চশিক্ষিত যুগলপ্রেমের জুটি পাওয়া যাবে। অবশ্যই এজন্য কারো মাথা ব্যাথাও নেই! অপ্রাপ্তবয়স
দিরাইয়ে স্কুল ব্যাগ পেলো দরিদ্র শিক্ষার্থীরা

দিরাইয়ে স্কুল ব্যাগ পেলো দরিদ্র শিক্ষার্থীরা


Warning: printf(): Too few arguments in /home/globalsylhet/public_html/wp-content/themes/viral/inc/template-tags.php on line 113
দিরাই প্রতিনিধি ঃ- সুনামগঞ্জের দিরাই পৌর সদরে এতিম দরিদ্র শিশুদের শিক্ষালয় স্বপ্নময় বিদ্যা নিকেতনের অর্ধশত শিক্ষার্থীদের মাঝে নিউজ পোর্টাল কলম শক্তি ডটকম’র প্রধান সম্পাদক মাসুক সরদারের অর্থায়নে স্কুল ব্যগ বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল বুধবার সকাল ১০টায় বিদ্যালয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে শিক্ষার্থীদের হাতে স্কুল ব্যাগ তুলে দেয়া হয়। বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা প্রভাষক মোস্তাহার মিয়া মোস্তাকের সভাপতিত্বে ও কলম শক্তি ডটকম’র স্টাফ রিপোর্টার জয়ন্ত সরকারের পরিচালনায় ব্যাগ বিতরণ পূর্ব আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা তাপস কুমার রায়, প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমান লিটন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবু হানিফ চৌধুরী, অর্থ সম্পাদক প্রশান্ত সাগর দাস, অনলাইন প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক ও কলম শক্তি ডটকম সম্পাদক মোশাহিদ আহমদ, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী খালেদ আহমদ জায়িম, রবিনুর চৌধুরী, কলম শক্তি ডটকম পাঠক ফোরা
শিশুদের মনস্তাত্ত্বিক ভিত্তি পর্যবেক্ষেণেই কর্মমুখী শিক্ষার প্রয়োজন

শিশুদের মনস্তাত্ত্বিক ভিত্তি পর্যবেক্ষেণেই কর্মমুখী শিক্ষার প্রয়োজন


Warning: printf(): Too few arguments in /home/globalsylhet/public_html/wp-content/themes/viral/inc/template-tags.php on line 113
নজরুল ইসলাম তোফা:: বাংলাদেশের শিক্ষাব্যবস্থা ইংরেজ আমল থেকে আরম্ভ করে আজঅবধি চলে আসছে। এই ব্যবস্থা আসলেই পুস্তক কেন্দ্রিকই বলা চলে। পাঠ্য বইয়ের কথা গুলো কোনও রকমে মুখস্থ করে পরীক্ষার খাতায় উদ্গীরণ করতে পারলে যেন, কৃতিত্বের সহিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার অসুবিধাটি তাদের আসে না। সুতরাং এমন এ পরীক্ষায় জ্ঞানের পরীক্ষা না হলেও 'স্মৃতি-শক্তির' পরীক্ষায় পর্যবসিত হয়েছে। তাদের সুন্দর জীবন গঠনে পুঁথিগত বিদ্যার কিছুটা প্রয়োজন আছেও বৈকি। এইকথা অস্বীকার করবার উপায় নেই। কিন্তু, 'পুঁথিগত' শিক্ষা মানুষকে জীবনের সমস্যা সমাধান করে না। জার্মানির বোখুম শহরের একটি স্কুলে পড়াশোনা বিষয়টি একবারেই নতুন পদ্ধতিতে কিংবা খেলাধুলার ছলে শেখান হয়৷ সেখানে প্রোমোশন ও ভালো রেজাল্ট বড় কথা নয়৷ ছোট ছেলে-মেয়েরা কারিগরি ক্লাসে তরোয়াল তৈরি করতেই শেখে৷ আসলেই তারা খেলার ছলেই শেখে বিভিন্ন কায়দাকানুন৷ তাছাড়াও প্রতিটি শ
ক্ষমতাবলে শিক্ষক হওয়া স্যার, আপনাকেই বলছি!

ক্ষমতাবলে শিক্ষক হওয়া স্যার, আপনাকেই বলছি!


Warning: printf(): Too few arguments in /home/globalsylhet/public_html/wp-content/themes/viral/inc/template-tags.php on line 113
জ্বী, আমিও ‘শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়’ এর সমাজবিজ্ঞান বিভাগের প্রথম শ্রেণিতে প্রথম হওয়া একজন ছাত্রী। কিন্তু না, আমি শিক্ষক হইনি এবং আমি প্রতীকের মতো কষ্ট পেয়ে আত্মহত্যাও করিনি। আত্মহত্যা কেন করিনি সেটায় পরে আসছি, প্রথম শ্রেণিতে প্রথম হয়ে শিক্ষক কেন হইনি সেটা বলি আগে। আমি শিক্ষক হইনি কারণ আমি ছাত্রলীগ করতাম না এবং তখন জনৈক ছাত্রলীগ নেতার হঠাৎ করে খুব শখ হলো উনিও টিচার হবেন। উনি দেখলেন যে উনার শিক্ষার ঝুলিতে শিক্ষক হওয়ার মতো তেমন কিছু একটা না থাকলেও ক্ষমতা ছিল, উনার ঝুলিতে ক্ষমতাবলে জোর করে অন্যায়কে ন্যায় প্রমাণ করার মতো দক্ষতা ছিল, উনাদের ক্ষমতা ছিল জোর করে অন্যের প্রাপ্য জিনিস অন্যায়ভাবে নিজের করে নেয়া। উনারা নকল করে, রাজনীতি করে কোনোরকম পরীক্ষা পাশ করতেন, কখনো বা আবার পাশও করতেন না। কিন্তু আমরা যারা সারাবছর কষ্ট করে পড়াশোনা করতাম মায়ের স্বপ্ন পূরণ করার জন্য, ‘মেয়ে
এই গ্লানি কোথায় রাখি—–মুহম্মদ জাফর ইকবাল

এই গ্লানি কোথায় রাখি—–মুহম্মদ জাফর ইকবাল


Warning: printf(): Too few arguments in /home/globalsylhet/public_html/wp-content/themes/viral/inc/template-tags.php on line 113
                                         ফাইল ছবি আমি প্রতি দুই সপ্তাহ পর পর পত্রপত্রিকায় লিখি, এই সপ্তাহের জন্যেও লিখতে বসেছিলাম। সবেমাত্র একটা ইলেকশন শেষ হয়েছে, মোটামুটি সবাই জানতো আওয়ামী লীগের মহাজোট জিতে আসবে, কিন্তু ফলাফল দেখে আমরা সবাই কম-বেশি চমকে উঠেছি। সত্যি সত্যি দেশের সব মানুষ আওয়ামী লীগের পক্ষে চলে গিয়েছে নাকি এর মাঝে অতি উৎসাহী মানুষের অবদান আছে বোঝার চেষ্টা করছিলাম।একটা জিনিস স্পষ্ট, এই দেশে এখন মানুষ মন খুলে কথা বলতে ভয় পায়, পত্রপত্রিকাও যথেষ্ট সতর্ক। সবকিছু মিলিয়ে আমি আমার নিজের মতো করে কিছু একটা লিখে প্রায় শেষ করে এনেছি, তখন হঠাৎ করে সংবাদপত্রে একটা সংবাদে চোখ আটকে গেলো।নোয়াখালীর সুবর্ণচর এলাকায় চার সন্তানের জননীকে ধানের শীষে ভোট দেওয়ার জন্যে গণধর্ষণ করা হয়েছে (আজকাল প্রায়ই গণধর্ষণ শব্দটি চোখে পড়ে কিন্তু এখনও আমি এটাতে অভ্যস্ত হতে পারিনি, বাংলা ভাষায় এর চাইতে ভয়ঙ্কর ক
error: Content is protected !!
JS security