ছাগলে পেঁপে গাছ খাওয়াকে কেন্দ্র করে যুবক খুন

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি:- ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা উপজেলার পল্লী এলাকায় ছাগলে পেঁপে গাছ খাওয়াকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের সাবলের আঘাতে সোহেল (৩৫) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। এতে আহত হন আরো চারজন। আহতরা হলেন, মাওলানা ফয়জুর রহমান সুরুজ, দেলোয়ার হোসেন, শফিকুল ইসলাম ও হাফিজুর রহমান।

এ ঘটনায় নিহত সোহেলের বড় ভাই মাওলানা ফয়জুর রহমান সুরুজ মুক্তাগাছা থানায় মামলা করেছেন। মামলায় আ. সামাদ বাদলকে প্রধান আসামিসহ পাঁচজনের নাম উল্লেখ করে আরো চার-পাঁচজনকে অজ্ঞাত আসামি করেন। আসামিরা হলেন মকবুল হোসেন, তার তিন ছেলে আব্দুস সামাদ বাদল, মাসুদ, বাবুল, বাদলের স্ত্রী হোসনে আরা।

রবিবার দুপুরে পুলিশ নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। এর আগে শনিবার বিকালে উপজেলার খেরুয়াজানি ইউনিয়নের ঘরবাজাইল গ্রামে এই হত্যাকাণ্ড ঘটে। এ নিয়ে গ্রামটিতে আতঙ্ক বিরাজ করছে। হত্যার পর থেকেই আসামিরা বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়েছে।

নিহতের স্বজনরা অভিযোগ করে বলেন, গত শুক্রবার প্রতিবেশী বাদলের একটি পেঁপে গাছ খায় সোহেলের ছাগল। পরে ওই ছাগলেকে বাদলের স্ত্রী খোয়ারে দিয়ে আসেন। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। শুক্রবারের কথা কাটাকাটির জেরে শনিবার পূর্ব পরিকল্পিতভাবে হামলা চালিয়ে সোহেলসহ তার পরিবারের পাঁচজনকে দেশীয় অস্ত্রের আঘাতে আহত করে। পরেরদিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোহেল মারা যান।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মুক্তাগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিপ্লব কুমার বিশ্বাস বলেন, ছাগল পেঁপে গাছ খেয়েছে। এমন ঘটনাকে কেন্দ্র করে ঝগড়া হয়। এ নিয়ে মারামারির এক পর্যায়ে একজন খুন হয়েছেন। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। মামলার আসামি বাদলের বাবা মকবুল হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানান ওসি।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :97 বার!

JS security