নেহাকে গর্ভাবস্থায় মেরে ফেলতে চেয়েছিলেন মা-বাবা


রোববার (৬ জুন) ৩৩ বছরে পা দিয়েছেন জনপ্রিয় গায়িকা নেহা কক্কর । এ উপলক্ষে দিনভর অনলাইনে ভক্তদের শুভেচ্ছার জোয়ারে ভাসছেন তিনি। বিয়ের পর গায়িকার প্রথম জন্মদিন এটি। স্বামী রোহনপ্রীত সিংহও আলাদা করে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন স্ত্রীকে। এত আনন্দের মধ্যেও জন্মের ঘটনা আজও কষ্ট দেয় নেহাকে। কেন? এমনই এক জন্মদিনে বোনের প্রকৃত জীবনকথা সামনে এনেছিলেন নেহার দাদা টনি কক্কর। তিনি জানিয়েছিলেন, কক্কর পরিবারের অবাঞ্ছিত সন্তান নেহা! গর্ভপাত করে নেহাকে মেরে ফেলতে চেয়েছিলেন তাদের মা-বাবা।

নেহাকে কেন পৃথিবীর আলো দেখাতে চায়নি কক্কর দম্পতি? সেই কারণও জানান টনি, ‘আমরা তখন ভীষণ গরিব ছিলাম। সংসারের আর্থিক অবস্থা ক্রমশ খারাপ হচ্ছিল। তত দিনে আমি আর সোনু জন্মেছি। মা তাই আর সন্তান চাননি। কিন্তু অজান্তেই নেহাকে গর্ভে ধারণ করে ফেলেন। তার ভাষ্য, ‘নেহা গর্ভে এসেছে জানার পরেই বাবা-মা তার গর্ভপাত করাতে চান। কিন্তু তত দিনে গর্ভস্থ সন্তানের বয়স ৮ মাস পেরিয়ে গিয়েছে। অবশেষে এক গ্রীষ্মের বিকেলে পৃথিবীর আলো দেখে নেহা।

প্রচণ্ড অভাবের তাড়নায় ছোটবেলায় বিভিন্ন অনুষ্ঠানে ভজন গেয়ে সংসার চালিয়েছেন সোনু-নেহা। বরাবরই নেহার পথপ্রদর্শক সোনু। তিনিই বোনকে সংগীতের হাতেখড়ি দিয়েছিলেন। ২০১৭ সালে ‘ইন্ডিয়ান আইডল’-এ অংশ নেওয়ার পরেই ভাগ্য বদলে যায় নেহার। গায়িকা এখন ভারতের অন্যতম জনপ্রিয় গায়িকা। বাংলাদেশেও তার অনেক ভক্ত রয়েছে।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :33 বার!

JS security