পুলিশের খাঁচায় সিলেটের মানবপাচারকারী মতিউর রহমান


সিলেটে শীর্ষ মানবপাচারীদের তালিকায় থাকা মতিউর রহমানকে রাজধানীর শাহবাগ থানা পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছেন আদালত। মানবপাচারের অভিযোগে পৃথক চারটি মামলায় আগাম জামিন আবেদন নাকচ করে আজ মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) তাকে শাহবাগ থানা পুলিশের কাছে তুলে দেন হাইকোর্ট।হাইকোর্টের বিচারপতি মো. মঈনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি একেএম জহিরুল হকের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে আজ জামিন আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মো. শফিউল্লাহ হায়দার। জামিন আবেদনের বিরোধিতা করে রাষ্ট্রপক্ষে বক্তব্য দেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল তামান্না ফেরদৌস।

তামান্না ফেরদৌস বলেন, আসামি মতিউর রহমানের বিরুদ্ধে সিলেটে মানবপাচার প্রতিরোধ আইনে ২০১৯ সালের ১ ডিসেম্বর পৃথক চারটি মামলা হয়। এ মামলায় তার বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট এবং গুরুতর অভিযোগ রয়েছে। দীর্ঘদিন পলাতক থেকে তিনি আগাম জামিন নিতে আজ হাইকোর্টে এসেছেন। এ জামিন সরাসরি খারিজ প্রার্থনা করি। আদালত আমাদের আবেদন গ্রহণ করে আসামিকে থানায় হস্তান্তর করতে বলেন। অর্থাৎ আদালত তার জামিন আবেদন নাকচ করে পুলিশের হাতে তুলে দেন। পরে তাকে সুপ্রিম কোর্টে দায়িত্বরত পুলিশের কাছে তুলে দেয়া হয়।

সুপ্রিম কোর্টে এডিসি লুবনা মোস্তফা বলেন, মতিউর রহমান নামে একজন আসামি আমাদের কাছে আছে। আদালতের আদেশের কপি পেলে তাকে শাহবাগ থানায় হস্তান্তর করা হবে। ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে মানবপাচারে জড়িত থাকার অভিযোগে মতিউর রহমানের বিরুদ্ধে সিলেটে মামলা করে এক ভুক্তভোগী।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :54 বার!

JS security