প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় প্রাণ গেল জেরিনের

হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ-প্রেমে র প্রস্তাব প্রত্যাখ্যানের ঘটনাকে কেন্দ্র করে এসএসসি পরীক্ষার্থী মদিনাতুল কুবরা জেরিন (১৬) নিহত হবার ঘটনা ঘটেছে। হবিগঞ্জ সদর উপজেলার ধল গ্রামের আব্দুল হাইয়ের মেয়ে জেরিন রিচি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষার্থী। একই গ্রামের দিদার হোসেনের পুত্র জাকির হোসেন আদালতে দেয়া স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দিকে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। গতকাল এক প্রেস ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা বিপিএম, পিপিএম এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি জানান, গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় হবিগঞ্জ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সুলতান উদ্দিন প্রধানের আদালতে জাকির ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমুল জবানবন্দি দিয়েছে।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা বলেন, স্কুল ছাত্রী জেরিনকে জাকির হোসেন প্রেমের প্রস্তাব দিলে সে তা প্রত্যাখ্যান করে। জেরিনের অভিভাবক জাকিরের পিতা ও বড় ভাই এর নিকট বিচার প্রার্থী হলে তারা জেরিনের বাড়ি গিয়ে তাকে জাকির আর ডিস্টার্ব করবে না বলে আশ্বস্থ করেন এবং জাকিরকে তারা কঠুরভাবে শাসন করেন। এতে জাকির বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠে। সে সদর উপজেলার পাটলী গ্রামের সিএনজি চালক নুর আলম (২০) ও বন্ধু হৃদয় (২০) এর সাথে পরামর্শক্রমে জেরিনকে অপহরণ ও হত্যার পরিকল্পনা করে।
তিনি বলেন, গত ১৮ জানুয়ারী সকাল প্রায় পৌনে ৮টার দিকে জেরিন স্কুলে যাওয়ার জন্য ধল তেমুনিয়া পয়েন্ট থেকে নুর আলমের সিএনজিতে উঠে। ওই সিএনজিতে হৃদয়ও ছিল। কিছুদুর যাবার পর সামনে অবস্থানরত জাকির সিএনজির সামনে উঠে। সিএনজিটি রিচি উচ্চ বিদ্যালয়ের ১ম গেইট, ২য় গেইটে না থামালে সে বুজতে পারে থাকে অপহরণ করা হচ্ছে। এ সময় জেরিনের সাথে ধস্তাধস্তি অথবা কোনভাবে ধাক্কার কারণে পড়ে গিয়ে গুরুতর আহত হয়। স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় তাকে প্রথমে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাতে তাকে সিলেট এম এ জি ওসমানী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধিন অবস্থায় পরদিন ১৯ জানুয়ারী সকাল ৯ টার দিকে জেরিন মারা যায়।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :191 বার!

JS security