শাল্লায় যুবলীগ নেতার সন্ত্রাসী হামলায় পুলিশের এসআই হাসপাতালে আটক ৩


শাল্লা প্রতিনিধি:
সুনামগঞ্জ জেলার শাল্লায় যুবলীগ নেতা অপু বাহিনীর সন্ত্রাসী হামলায় পুলিশের এস,আই শাহ আলী গুরুতর আহত হয়েছেন।রাতের আঁধারে শাল্লা থানা সংলগ্ন রাস্তায় এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্যে জানা যায়, এসআই শাহ আলী সোমবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে থানা থেকে বের হয়ে বাসায় যাবার সময় যুবলীগ নেতা অরিন্দম চৌধূরী অপু ও তার বাহিনীর ৭/৮ জন লোক দা, লোহার রড, লোহার পাইপ নিয়া অতর্কিত হামলা চালায়। সন্ত্রাসীদের আক্রমনের ফলে শাহ আলী গুরুতর আহত হয়ে মাটিতে পড়ে চিৎকার করতে থাকেন। তার চিৎকার শুনেমনে আশে পাশের লোকজনসহ থানার অন্যান্য পুলিশ সদস্যগণ আসিলে সন্ত্রাসীরা উল্লাস করতে করতে চলে যায়।
ওইসময় পুলিশ সদস্যরা আহত শাহ আলীকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেন।
তাদের ভাষ্যমতে আরো জানা যায়, এ ঘটনা ঘটানোর পরেও সন্ত্রাসীরা হাতে অস্ত্রসস্ত্র নিয়া থানা সদরের বিভিন্ন পয়েন্টে মহড়া দিতে দেন।
পরে শাল্লা থানা পুলিশ কথিত যুবলীগ নেতা উপজেলার নাইন্দা গ্রামের অনিলবরন চৌধুরীর ছেলে অরিন্দম চৌধুরী অপু (৩৮), ঘুঙ্গিয়ারগাও গ্রামের নারুগোপাল রায়ের ছেলে রতন রায় (২৮) ও বাহাড়া গ্রামের মিষ্টলাল দাসের ছেলে সেন্টু দাস (২৩) কে গ্রেফতার করেন।
এসআই শাহ আলীর সাথে কথা হলে তিনি বলেন, ওইদিন ওসি সাহেব অনুপস্থিত থাকায় আমি সারাদিন অফিসিয়াল কাজ সেরে রাত প্রায় সাড়ে ১২ টায় থানা থেকে বের হয়ে বাসায় যাবার সময় অপুর সন্ত্রাসী বাহিনী দা, লোহার রড, পাইপ ইত্যাদি দিয়া অতর্কিতে আমার উপর হামলা চালায়। সন্ত্রাসীরা আমাকে দা দিয়া কুপাইয়া ও লোহার রড, পাইপ দিয়া এলোপাতারী বাইরাইয়া আমার কপালে রক্তাক্ত জখম ও কোমরসহ আমার হাতে- পায়ে ও হাতের আঙ্গুলে হাড়ভাঙ্গা জখম করে।

প্রত্যক্ষদর্শী ঘুঙ্গিয়ারগাওয়ের রামিম চৌধুরী, কলেজ রোডের আনিসুল হক আনিস ও ঘুঙ্গিয়ারগায়ের মুসলিমপাড়ার বাসিন্দা আনোয়ার হোসেন জানান, অপু ও অপুর সন্ত্রাসী বাহিনী এসআই শাহ আলীকে কমান্ডো স্টাইলে মারধর করেছে। আমরা ফিরানোর চেষ্টা করলে আমাদেরকেও হুমকি দেয় ওই সন্ত্রাসী বাহিনী। তারা আরো জানান, সন্ত্রাসীরা এসআই শাহ আলীকে বেধরক মারধর করে রক্তাক্ত করে এবং পরবর্তীতে ওই সন্ত্রাসীরা থানা সদরের বিভিন্ন পয়েন্টে সসস্ত্র মহড়া দেয়। ওই সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে ও মহড়ায় কারা উপস্থিত ছিল জানতে চাইলে তারা বলেন, যুবলীগ নেতা অরিন্দম চৌধুরী অপু, ঘুঙ্গিয়ারগায়ের মৃত পঙ্কজ সরকারের ছেলে পলাশ সরকার পল্টু, নারুগোপাল রায়ের দুই ছেলে রতন রায় ও চন্দন রায়, ভাটগাও গ্রামের আজমান মিয়ার ছেলে আলেক মিয়া ও অজ্ঞাতনামা আরো ৪/৫ জন ওই সন্ত্রাসী হামলায় ও মহড়ায় যোগ দিয়েছিল।
এব্যাপারে শাল্লা থানা অফিসার ইনর্চাজ মোঃ নূর আলম জানান, আমি এসময় দিরাই ছিলাম, দায়িত্বেে ছিলন এসআই শাহ আলী, রাতে কাজ সেরে অফিস থেকে বের হলে ডিউটিরত অবস্থায় তার উপর পেছন দিক থেকে হামলা করে সন্যাসীরা।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার দিরাই সার্কেল আবু সুফিওয়ান জানান, অফিসের কাজ শেষে থানা থেকে বাসার পাশে হামলার শিকার হন এস আইন শাহ আলী, আহতাবস্থায় তিনি শাল্লা হাসপাতালে চিকিৎসকের পর্যবেক্ষণে আছেন।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :35 বার!

JS security