শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ, পালাতে গিয়ে ট্রাকচাপায় নিহত ২

গ্লোবাল ডেস্ক:- ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার মাস্টারবাড়িতে ক্রাউন ওয়্যার লিমিটেডে বেতন না দিয়ে ছুটির নোটিস টানিয়ে কারখানার গেইট বন্ধ করে দেয়া দেয়া হয়। এর প্রতিবাদে মহাসড়ক অবরোধ করেন শতশত শ্রমিক। এ সময় পুলিশের রাবার বুলেট ও কাঁদানে গ্যাস থেকে রক্ষায় পালাতে গিয়ে ট্রাকচাপায় দুই শ্রমিক নিহত হয়েছেন। এ সংঘর্ষে অন্তত ২৫ জন আহত হন। সোমবার সকালে উপজেলার মাস্টারবাড়ি শিল্পাঞ্চলে এ সংঘর্ষ হয়।

নিহতরা হলেন- ক্রাউন ওয়ার এ্যাপারেল লিমিটেডের এমজিটি সেকশনের সহকারী প্রডাকশন ম্যানেজার (এপিএম) হারুন অর রশিদ (কার্ড নম্বর-০০৪১৭১), এবং অপরজনের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

শ্রমিক ও স্থানীয়রা বলছে, সকালে মাস্টারবাড়িতে ক্রাউন ওয়্যার এ্যাপারেল লিমিটেডের শ্রমিকরা কাজে যোগদান করতে যান। এ সময় তারা দেখতে পান- বেতন না দিয়েই ছুটির নোটিস টানিয়ে কারখানার প্রধান গেইট বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এর প্রতিবাদে শতশত শ্রমিক ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে নেমে আসেন এবং বিক্ষোভসহ অবরোধ করেন। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ও শিল্পপুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। মহাসড়ক অবরোধ না ছাড়ায় পুলিশ শ্রমিকদের লক্ষ্য করে রাবার বুলেট ও কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ শুরু করে। এ সময় পালিয়ে যাওয়ার সময় ট্রাকচাপায় দুই শ্রমিক নিহত হন। এ সময় রাবার বুলেটের আঘাতে জানালা ভেঙে স্থানীয় আব্দুর রহিমের বাসার তিন তলার ভাড়াটিয়া আল আরাফা ইসলামী ব্যাংকের মাস্টারবাড়ি ব্র্যাঞ্চের ম্যানেজার মিজানুর রহমানসহ অন্তত ২৫ জন আহত হয়েছেন।

ক্রাউন ওয়্যার এ্যাপারেল লিমিটেডের অ্যাডমিন ম্যানেজার সোহেল জানান, কর্তৃপক্ষের নির্দেশে ৮ এপ্রিল বেতন দেয়ার নোটিস টানিয়ে কারখানা বন্ধের ঘোষণা দেয়া হয়। কিন্তু কিছু শ্রমিক মহাসড়কে গিয়ে জটলা শুরু করে। পরে পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করে। তাছাড়া ট্রাকচাপায় নিহত ব্যক্তি তাদের কারখানার শ্রমিক নয় বলে তিনি জানান।

ভালুকার ভরাডোবা হাইওয়ে পুলিশের ইনচার্জ উযায়ের আহমেদ আদনান জানান, ট্রাকচাপায় নিহত দুজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তার মাঝে হারুন অর রশিদ নামে একজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তিনি মাস্টারবাড়ি এলাকার ক্রাউন ওয়্যার এ্যাপারেল লিমিটেডে একটি সেকশনের এপিএম পদে কর্মরত ছিলেন। অপরজন গাজীপুরের শালনার এক কারখানা শ্রমিক বলে জানতে পেরেছি। তবে, এ ব্যাপারে খোঁজ-খবর নেয়া হচ্ছে।

শিল্পপুলিশ ময়মনসিংহ অঞ্চল-৫ এর সহকারী পুলিশ সুপার নুরুন্নবী জানান, শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করতে ৩৫ রাউন্ড রাবার বুলেট ও ৩০ রাউন্ড কাদানি গ্যাস নিক্ষেপ করা হয়েছে।

শিল্প পুলিশ ময়মনসিংহ অঞ্চল-৫ এর পুলিশ সুপার (এসপি) সাহেব আলী পাঠান জানান, রাবার বুলেট নিক্ষেপের কিছুক্ষণ পরে ও আধাকিলোমিটার দূরে ট্রাকচাপায় দুজন নিহত হয়েছেন। নিহতদের মাঝে একজন হলেন, গাজীপুরের শালনায় অবস্থিত ফ্রেন্ড নিটিং লিমিটেডের প্রডাকশন সেকশনের লাইন ইনচার্জ মো. হারুন (কার্ড নম্বর-১০০১৪৬৬)। তাছাড়া ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে এবং বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত আছে।

....সংবাদটি সম্পর্কে মন্তব্য করুন

মন্তব্য

সংবাদটি পড়া হয়েছে :206 বার!

JS security